ভারতের রাজস্থানে জীবন্ত পুড়িয়ে মারা হল শিক্ষিকাকে |

0
11

 

AVvXsEjHG4yaSQVnAvgqvIvvXV7UWzhF4om1YpGluKyNQfu GttVx8N7y6cZ6pDzRyrmptES1ZKAfbGepRPYoOsZMHfjHJLKBCqdgebaQQXW5cS6FHT sxdLPcH5WQkOPfAkx1 kPFDXS2NYIv5Ch6kumq0qGBR59fOwnU1ARbDIlUDV oQ4H dMBVxvTfAP=w636 h358

ভারতের রাজস্থানে জীবন্ত পুড়িয়ে মারা হল শিক্ষিকাকে

স্কুলে যাওয়ার সময়ে হামলাকারীরা ঘিরে ধরেন ৩২ বছর বয়সী দলিত শিক্ষিকা অনিতা রেগরকে। মারধর করা হয় তাকে। পালিয়ে একটি নির্মীয়মাণ বাড়িতে আশ্রয় নিলে সেখানেও হামলাকারীরা পৌঁছে যায়। অনেক মানুষের সামনেই তার গায়ে পেট্রোল ঢেলে জ্বালিয়ে দেয়া হয় তাকে।


পুলিশ বলছে, মূল অভিযুক্তরা ওই শিক্ষিকা অনিতা রেগরেরই আত্মীয় এবং তার মতো হামলাকারীদের অনেকেই দলিত শ্রেণীরই মানুষ।


ধার দেয়া টাকা চাইতে গেলে ৩২-বছর বয়সী ওই শিক্ষিকাকে আক্রমণ করা হয়, তারপরে পেট্রোল ঢেলে তার দেহে আগুন ধরিয়ে দেয়া হয়।কয়েকদিন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকার পরে মারা যান ওই নারী।

কেউ সাহায্য করতে এগিয়ে আসে নি

যে নির্মীয়মাণ বাড়িতে মিসেস রেগর আশ্রয় নিয়েছিলেন, সেখানে হামলার সময়ে আরও অনেকে জড়ো হয়েছিলেন, কিন্তু তার গায়ে যখন পেট্রল ঢেলে আগুন লাগানো হচ্ছে, তখন কেউ সাহায্য করতে এগিয়ে আসেন নি।

দ্বিতীয় এক ভাইরাল ভিডিওতে এটাও দেখা গেছে যে জ্বলন্ত মিসেস রেগরের ভিডিও করছেন কিছু মানুষ, কিন্তু কেউই এগিয়ে আসেন নি তাকে বাঁচাতে।

AVvXsEiK7VJ1PPw6QFJ54 wjybsksa0fka4dFkO 7uI5IGaeb5JxTNbvHlQNu8OcmKRiK5HWJzy17LB6tRFtEqEbQOfDQHhazrQqebDlNXi5HBGqrVp91heoFCWjB3HbYzyxVW3aAtILQrZQDleV49H6vv1DpkbCKcLCouiWU1 YH3lEZHSb3sUrIIuloixb=w626 h350


পুলিশ বলছে, হামলাকারীদের নামে আগেই অভিযোগ জানিয়েছিলেন মিসেস রেগর, তার ভিত্তিতে কয়েকজনকে গ্রেপ্তারও করা হয়েছে। কিন্তু যারা গায়ে আগুন লাগিয়ে দিয়েছে, তারা এখনও ফেরার।


‘পারিবারিক বিবাদ থেকেই এই ঘটনা’

জয়পুর গ্রামীণের অতিরিক্ত পুলিশ সুপারিন্টেডেন্ট ধর্মেন্দ্র যাদব সংবাদ সংস্থা এএনআইকে জানিয়েছেন, “ওই নারী তার এক আত্মীয়কে কিছু টাকা ধার দিয়েছিলেন যদিও তার কোনও নথিপত্র ছিল না। সেই টাকা শোধ করা নিয়েই একই পরিবারের মধ্যেই ঝামেলা হয় আগে।”


“নিহত নারী অভিযোগ করেছিলেন যে তাকে মারধর করা হয়েছে। সেসময়ে দু’জন নারীকে গ্রেপ্তারও করি আমরা। তার চারদিন পরে দ্বিতীয় একটি অভিযোগ আনেন মিসেস রেগর, তার ভিত্তিতে আরও দু’জন গ্রেপ্তার হন।


Post by bbc news

আরো পড়ুন:


LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here