সুপারি পাড়া নিয়ে হত্যার ঘটনায় মা-মেয়ে গ্রেপ্তার

0
15

 

%E0%A6%B8%E0%A7%81%E0%A6%AA%E0%A6%BE%E0%A6%B0%E0%A6%BF%20%E0%A6%AA%E0%A6%BE%E0%A7%9C%E0%A6%BE%20%E0%A6%A8%E0%A6%BF%E0%A7%9F%E0%A7%87%20%E0%A6%B9%E0%A6%A4%E0%A7%8D%E0%A6%AF%E0%A6%BE%E0%A6%B0%20%E0%A6%98%E0%A6%9F%E0%A6%A8%E0%A6%BE%E0%A7%9F%20%E0%A6%AE%E0%A6%BE %E0%A6%AE%E0%A7%87%E0%A7%9F%E0%A7%87%20%E0%A6%97%E0%A7%8D%E0%A6%B0%E0%A7%87%E0%A6%AA%E0%A7%8D%E0%A6%A4%E0%A6%BE%E0%A6%B0

সুপারি পাড়া নিয়ে হত্যার ঘটনায় মা-মেয়ে গ্রেপ্তার

পিরোজপুরের কাউখালী উপজেলার শিয়ালকাঠি গ্রামে মনিরুজ্জামান হাওলাদার (৫৫) নামের এক ব্যক্তিকে হত্যার অভিযোগে দুজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গতকাল রোববার রাতে নিহত মনিরুজ্জামানের বোন শাহনাজ পারভীনের করা মামলার পর তাঁদের গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তার হওয়া ব্যক্তিরা হলেন উপজেলার শিয়ালকাঠি গ্রামের রুহুল আমিনের স্ত্রী হেলেনা বেগম (৪৫) ও মেয়ে রুনু আক্তার (২৫)। তাঁদের আজ সকালে আদালতে পাঠানো হয়েছে। মামলার প্রধান আসামি রুহুল আমিন পলাতক। নিহত মনিরুজ্জামান হাওলাদার তাঁদের পাশেই একটি ঘরে থাকতেন।

পুলিশ ও স্থানীয় লোকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, মনিরুজ্জামান হাওলাদার উপজেলার শিয়ালকাঠি গ্রামের বাড়িতে একা থাকতেন। তাঁর স্ত্রী ও ছেলে যশোরে থাকেন। মনিরুজ্জামানের সঙ্গে চাচাতো ভাই রুহুল আমিনের বসতবাড়ির সুপারি বাগান নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলছিল। গতকাল দুপুর ১২টার দিকে মনিরুজ্জামান বাগানে সুপারি পাড়তে গেলে রুহুল আমিন, তাঁর স্ত্রী হেলেনা বেগম ও মেয়ে রুনু আক্তার তাঁকে মারধর করেন।

রাত আটটার দিকে মনিরুজ্জামানের বোন লাকি বেগমের কাছে রুহুল আমিনের স্ত্রী ফোন করে বলেন, দুপুরে বাড়িতে মারামারি হয়েছে। ঘরের মধ্যে মনিরুজ্জামানের কোনো সাড়াশব্দ পাওয়া যাচ্ছে না। 
এরপর রাত নয়টার দিকে মনিরুজ্জামানের দুলাভাই মো. জাহাঙ্গীর ওই বাড়িতে গিয়ে দেখেন, তাঁর লাশ মৃত অবস্থায় পড়ে আছে। 

খবর পেয়ে রাত ১১টার দিকে পুলিশ ঘর থেকে মনিরুজ্জামানের লাশ উদ্ধার করে। পিরোজপুর সদর হাসপাতালের মর্গে ময়নাতদন্ত শেষে মনিরুজ্জামানের লাশ পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়। এ ঘটনার পরপর রুহুল আমিন আত্মগোপনে চলে যান।

আরো পড়ুন:

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here