মাঠে-বাইরে সমান ভয়ঙ্কর আয়াক্স

চোট থেকে ফিরে গোল করেছেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। তার কারণে প্রতিপক্ষের মাঠ থেকে মহামূল্যবান একটি অ্যাওয়ে গোল নিয়ে ফিরেছে জুভেন্টাস। তবে সব ম্লান! পুরো ম্যাচজুড়ে এমনই ভয়ঙ্কর ছিল আয়াক্স যে, রোনালদোর কীর্তিও পানসে হয়ে গেছে ১১ জনের দারুণ লড়াইয়ে!
আয়াক্সের মাঠ থেকে বুধবার ১-১ গোলের ড্র নিয়ে জুভেন্টাস ফিরেছে ঠিকই, কিন্তু মাঠে সবার মন জয় করেছে আয়াক্সের তরুণ ফুটবলারদের খেলা। এমনকি ম্যাচ শেষে শুরু হয়ে গেছে ফিসফাস, রিয়াল মাদ্রিদের মতো দ্বিতীয় লেগ জিতে জুভদেরও চ্যাম্পিয়ন্স লিগের কোয়ার্টার ফাইনাল থেকেই বিদায় করে দেবে ডাচ জায়ান্টরা!







কঠিন প্রতিদ্বন্দ্বীতার মুখোমুখি হওয়া লাগতে পারে এমন ভাবনায় আগেই সতর্ক ছিলেন জুভেন্টাস কোচ ম্যাস্সিমিলিয়ানো অ্যাল্লেগ্রি। কিন্তু ম্যাচ শুরুর আগেই বাগড়া বাধিয়েছেন আয়াক্সের একদল উচ্ছৃঙ্খল সমর্থক! মাঠে ঢোকা নিয়ে ঝামেলা বাঁধিয়েছেন পুলিশের সঙ্গে, গ্রেপ্তার হয়েছেন অন্তত ১০০জন। একটা সময় বাধ্য হয়ে জলকামানে জলও ছুঁড়তে হয়েছে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকে!
উটকো ঝামেলা এড়িয়ে মাঠের খেলায় ফিরতেই আয়াক্সের মাঠের খেলোয়াড়দের তোপে পড়েছেন জুভেন্টাস খেলোয়াড়রা। শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত একই গতি ধরে রেখে ইতালিয়ান জায়ান্টদের নাভিশ্বাস চড়িয়ে ছেড়েছেন স্বাগতিক ফুটবলাররা।


কিন্তু তারপরও প্রথম গোলটা পেয়েছে জুভেন্টাসই। বিরতির ঠিক আগের মিনিটে হেডে গোল করেন রোনালদো!
ম্যাচের হিসেবে ঠিক তার পরের মিনিটেই গোল শোধ দিয়েছে আয়াক্স। অর্থাৎ, বিরতি থেকে ফেরার প্রথম মিনিটেই দলকে সমতায় ফেরান ডেভিড নেরেস।
সমতায় ফেরার পর দারুণ গতিময় ফুটবল উপহার দিয়েছে আয়াক্স। পুরো ম্যাচে জুভেন্টাসের চেয়ে দ্বিগুণ শট নিয়েছে লক্ষ্য বরাবর। ব্যবধান বাড়ানোর একাধিক সুযোগও ছিল দলটির সামনে। তবে অনভিজ্ঞতা ও জুভেন্টাসের শক্তিশালী রক্ষণের সামনে ব্যবধানটা বড় হয়নি স্বাগতিকদের। কিন্তু যে খেলা উপহার দিয়েছে তরুণ এই দলটি, সেটা দ্বিতীয় লেগে অব্যাহত থাকলে জুভেন্টাসের জন্য কঠিন পরীক্ষাই হবে!

(channelionline)
লেবেলসমূহ:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

যোগাযোগ ফর্ম

নাম

ইমেল *

বার্তা *

Blogger দ্বারা পরিচালিত.
Javascript DisablePlease Enable Javascript To See All Widget