তৃতীয় আন্তর্জাতিক মূকাভিনয় উৎসব বৃহস্পতিবার থেকে

‘নির্বাকতার ঔজ্জ্বল্যে দীপ্ত হোক বিশ্বমৈত্রী’ স্লোগান নিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে তৃতীয় বারের মতো হতে যাচ্ছে আন্তর্জাতিক মূকাভিনয় উৎসব ২০১৯।
ঢাকা ইউনিভার্সিটি মাইম অ্যাকশনের (ডুমা) আয়োজনে এই উৎসব চলবে আগামী ১১ এপ্রিল থেকে ১৩ এপ্রিল পর্যন্ত।
বর্ণাঢ্য এই উৎসবে অংশ নিচ্ছে ইংল্যান্ড, থাইল্যান্ড, ইন্দোনেশিয়া এবং ভারতের মূকাভিনয় দল।
এছাড়াও অংশ নেবে বাংলাদেশে মূকাভিনয় চর্চারত দলসমূহ। এদের মধ্যে আছে প্যান্টোমাইম মুভমেন্ট (চট্টগ্রাম), মুক্তমঞ্চ নির্বাক দল (গাজীপুর), রঙ্গন মাইম একাডেমি (জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়), মাইম আর্ট (ঢাকা), সাইলেন্ট থিয়েটার (চট্টগ্রাম), মিরর মাইম থিয়েটার, মামারস (ঢাকা), ব্ল্যাকফ্লেইম থিয়েটার (ঢাকা), কাকাশিস (রংপুর), জগন্নাথ ইউনিভার্সিটি মাইম সোসাইটি এবং মাইম অ্যাকশন ময়মনসিংহ।



প্রতিদিন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্রে থাকবে উৎসবের মূল আয়োজন। এছাড়াও শহীদ মিনার, কার্জন হল, কলাভবন, শাহবাগসহ পুরো ক্যাম্পাসজুড়েই থাকবে পথ–শো। তিন দিনের আয়োজনে থাকছে মূকাভিনয়ের ওপর কর্মশালা, সেমিনার, স্কুল-কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের নিয়ে মূকাভিনয় প্রতিযোগিতা এবং পোস্টার প্রদর্শনী।
১১ এপ্রিল সন্ধ্যা সাড়ে ৬ টায় অনুষ্ঠান উদ্বোধন করবেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান এবং প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন অভিনেতা আকবর হোসেন পাঠান ফারুক, এমপি। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি এ কে আজাদ, ডাকসুর জিএস গোলাম রাব্বানী প্রমুখ।
১২ এপ্রিল উৎসবের দ্বিতীয় দিন প্রধান অতিথি থাকবেন কলা অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. আবু মো. দেলোয়ার হোসেন। বিশেষ অতিথি হিসেবে যোগ দেবেন বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব ম. হামিদ, অভিনেতা ও পরিচালক তৌকির আহমেদ, ডাকসুর এজিএস সাদ্দাম হোসেন প্রমুখ।
১৩ এপ্রিল উৎসবের সমাপনী দিন প্রধান অতিথি থাকবেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমান। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন সাবেক সংসদ সদস্য সিরাজুল ইসলাম মোল্লা, ডাকসুর ভিপি নুরুল হক নুর প্রমুখ।
তিন দিনের এই উৎসবে প্রতিদিন সন্ধ্যা সাড়ে ৬ টা থেকে থাকবে দেশি-বিদেশি বিভিন্ন দলের মূকাভিনয় প্রদর্শনী। ১৩ এপ্রিল রাত ১০ টায় অংশগ্রহণকারী দল এবং প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণের মাধ্যমে সমাপ্ত হবে আন্তর্জাতিক এ মূকাভিনয় উৎসব।
উৎসব সম্পর্কে সংগঠনের পরিচালক মীর লোকমান বলেন, বাংলাদেশকে বহির্বিশ্বে তুলে ধরার ক্ষেত্রে আমাদের এই আয়োজন ভূমিকা রাখবে বলে বিশ্বাস করি। আগামী দিনে নিঃসন্দেহে ক্রিকেটের মতই আরেকটি ‘ব্রান্ড অব বাংলাদেশ’ হবে এই মূকাভিনয়।
২০১১ সালের ২৭ ফেব্রুয়ারি “না বলা কথাগুলো না বলেই হোক বলা” স্লোগান নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী মীর লোকমানের হাত ধরে যাত্রা শুরু করে মূকাভিনয় সংগঠন ‘ঢাকা ইউনিভার্সিটি মাইম অ্যাকশন’।
পথচলার মাত্র ৮ বছরে সংগঠনটি জাতীয় ও আন্তর্জাতিক মূকাভিনয় উৎসব আয়োজনসহ দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়, বিভাগ ও জেলা শহরে ৫ শতাধিক মূকাভিনয় প্রদর্শনী করেছে। একই সঙ্গে পুরস্কৃত হয়েছে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে এবং সুনামও কুড়িয়েছে বেশ।
ইতোমধ্যে আর্মেনিয়া, চীন, দক্ষিণ কোরিয়া এবং ভারতে মূকাভিনয় প্রদর্শনীতে অংশ নিয়েছে দলটি। এরই ধারাবাহিকতায় সংগঠনটি এবার ৩য় বারের মতো আন্তর্জাতিক এই উৎসব আয়োজন করতে যাচ্ছে।

(rtvonline)
লেবেলসমূহ:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

যোগাযোগ ফর্ম

নাম

ইমেল *

বার্তা *

Blogger দ্বারা পরিচালিত.
Javascript DisablePlease Enable Javascript To See All Widget