এই কারণেই হ্যাজার্ডকে চায় রিয়াল মাদ্রিদ

গত রাতে ওয়েস্টহামকে নিজেদের মাঠে ২-০ গোলে হারিয়ে লিগে তৃতীয় স্থানে উঠে এসেছে চেলসি। ম্যাচে দুই গোল করে বেলজিয়ান উইঙ্গার এডেন হ্যাজার্ড জানিয়ে দিয়েছেন, রিয়াল মাদ্রিদ কেন তাঁর ব্যাপারে এত আগ্রহী।
ম্যাচে গোল হয়েছে দুটি। দুটি গোলই করেছেন ইডেন হ্যাজার্ড। দুই গোলে গতকাল নিজের দুই ধরনের ক্ষমতা দেখিয়েছেন ইডেন হ্যাজার্ড। আর অনুচ্চারে সবাইকে বুঝিয়ে দিয়েছেন, কেন রিয়াল মাদ্রিদের মতো ক্লাব তাঁকে দলে আনার জন্য এত আগ্রহী।




প্রথমেই দ্বিতীয় গোলটার কথা আলোচনা হোক। ইংলিশ মিডফিল্ডার রস বার্কলির বলটা নিয়ন্ত্রণে নেওয়ার জন্য ডি-বক্সের ভেতরে যে জায়গাটায় অবস্থান নিলেন বা বলটা যেভাবে নিয়ন্ত্রণ করে পুরোদস্তুর গোলশিকারির মতো ওয়েস্ট হামের জালে জড়ালেন, কে বলবে হ্যাজার্ড প্রথাগত স্ট্রাইকার নন? এই মৌসুমে লিগে এর মধ্যেই ১৬ গোল হয়ে গেছে তাঁর। গোল সহায়তা করেছেন আরও ১২ বার। মৌসুম শেষ হতে হতে হয়তো চেলসি ক্যারিয়ারে প্রথমবারের মতো ২০ গোলের মাইলফলক স্পর্শ করবেন। চেলসির অবস্থা এই মৌসুমে এমনিতেই খুব ভালো নয়।
খুব ভালো না খেলা একটা দলের হয়ে মৌসুমে ২০ বা তার চেয়েও বেশি গোল করা যেমন–তেমন কোনো কথা নয়। ওদিকে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো যাওয়ার পরে রিয়াল মাদ্রিদও অত বেশি গোল করতে পারছে না। গোল করার জন্য সেই পুরোনো পোড়খাওয়া ফরাসি স্ট্রাইকার করিম বেনজেমার ওপর ভরসা করতে হচ্ছে। বেনজেমার দুই পাশে খেলা উইঙ্গাররা, যেমন মার্কো আসেনসিও, গ্যারেথ বেল, ভিনিসিয়ুস জুনিয়র, লুকাস ভাজকেজের কেউই রোনালদোর সেই অভাবটা পূরণ করতে পারছেন না। তাই হ্যাজার্ড এলে যে রিয়াল মাদ্রিদের গোলসংখ্যা অবধারিতভাবে বাড়বে, সেটা আর ব্যাখ্যা করে না বলে দিলেও চলছে।
শুধুই কি গোল করার জন্য হ্যাজার্ডকে মাদ্রিদকে আনা হবে? অবশ্যই না। এবং হ্যাজার্ডের দিকে যে রিয়াল গোল করা ছাড়াও আরও অন্য কিছুর জন্য তাকিয়ে থাকবে, সেই ‘অন্য কিছু’র ঝলক হ্যাজার্ড দেখিয়েছেন কাল প্রথম গোলে।
মাঝমাঠ থেকে একাই বল টেনে নিয়ে গিয়ে যেভাবে ওয়েস্ট হামের সেন্ট্রাল মিডফিল্ড আর সেন্ট্রাল ডিফেন্সকে তছনছ করে দিয়ে গোল করলেন, রোনালদো যাওয়ার পর সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে সেই দর্শক-মুগ্ধকারী জাদু দেখানোর কেউ নেই এখন। বল পায়ের এমন এক জাদুকরকেই খুঁজছে রিয়াল। খুঁজছেন জিদান। রিয়ালের কোচ জিনেদিন জিদান তাই কিছুদিন আগে নিজে থেকেই হ্যাজার্ডে মুগ্ধতার কথা জানিয়েছেন। চেলসির সঙ্গে হ্যাজার্ডের চুক্তিরও আর বেশি বাকি নেই। এক বছর পর চুক্তি শেষে এমনিতেই অন্য ক্লাবে যাওয়ার জন্য ‘ফ্রি’ হয়ে যাবেন চেলসির হয়ে নতুন চুক্তিতে সই করতে অস্বীকৃতি জানানো হ্যাজার্ড। হ্যাজার্ডকে নতুন চুক্তিতে সই করানোর জন্য বলে বলে ক্লান্ত চেলসিও এখন ধরেই নিয়েছে, হ্যাজার্ডের রিয়াল যেতে আর বেশি দেরি নেই।
সে দিন আসা পর্যন্ত বরং প্রিমিয়ার লিগে হ্যাজার্ড-জাদু দেখা যাক!


(prothomalo)

লেবেলসমূহ:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

যোগাযোগ ফর্ম

নাম

ইমেল *

বার্তা *

Blogger দ্বারা পরিচালিত.
Javascript DisablePlease Enable Javascript To See All Widget