মুস্তাফিজের দলে যুব বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ক | Mustafiz team has a young World Cup winning captain


মুস্তাফিজুর রহমানের দল দিল্লি ক্যাপিটালসে গেলেন ভারতের অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ জয়ী অধিনায়ক ইয়াশ ঢুল। ২০ লাখ ভিত্তিমূল্যের এ খেলোয়াড়েরর পেছনে তাদের খরচ করতে হয়েছে ৫০ লাখ রুপি।

কদিন আগেই ভারতকে যুবা বিশ্বকাপ জিতিয়েছেন ঢুল। তিনিই এবার ফিজের সতীর্থ হলেন। ঢুলকে দিল্লি কিনলেও তার সঙ্গে বিশ্বকাপ জেতা ভিকি ওস্তওয়ালের প্রতি কেউ আগ্রহ দেখায়নি। ফলে নিলামে নাম উঠলেও অবিক্রীত রয়েছেন তিনি।


মুস্তাফিজুর রহমানের রাজস্থান রয়্যালস সতীর্থ চেতান সাকারিয়াকে কিনল দিল্লি ক্যাপিটালস। ৫০ লাখ ভিত্তিমূল্যের এ পেসারকে ৪ কোটি ২০ লাখ রুপি দিয়ে দলে নিয়েছে তারা। মুস্তাফিজও গিয়েছেন দিল্লিতে। ভিত্তিমূল্যে মুস্তাফিজুর রহমানকে কিনেছে দিল্লি ক্যাপিটালস। তার দাম ধরা হয়েছিল ২ কোটি রুপি। সেই দামেই তাকে কিনেছে দিল্লি।

নিলামের দ্বিতীয় দিনের শুরুতে দক্ষিণ আফ্রিকার এইডেন মারক্রামকে ২ কোটি ৬০ লাখ রুপিতে দলে নিয়েছে সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। প্রথম দিনের শুরুতেই নিলামে উঠেছিল শিখর ধাওয়ানের নাম। গত মৌসুমে দিল্লি ক্যাপিটালসের হয়ে খেলেছিলেন তিনি। এবার তাকে আর ধরে রাখেনি তারা। তাকে এ আসরে ৮ কোটি ২৫ লাখ রুপিতে কিনেছে পাঞ্জাব কিংস। তার ভিত্তিমূল্য ছিল ২ কোটি রুপি।

দামি অলরাউন্ডারদের মধ্যে সবার শীর্ষে ইংল্যান্ডের লিয়াম লিভিংস্টোন। তাকে ১১ কোটি ৫০ লাখ রুপি দিয়ে কিনেছে পাঞ্জাব কিংস। নিলামের প্রথম দিন শ্রীলঙ্কার হাসারাঙ্গাকে ১০ কোটি ৭৫ লাখে কিনেছিল রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরু। ভিত্তিমূল্যে শ্রীলঙ্কার ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গার দাম ধরা হয়েছিল এক কোটি রুপি। তবে শেষ পর্যন্ত তাকে কিনতে ১০ কোটি ৭৫ লাখ রুপি খসাতে হয় বেঙ্গালুরুকে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

যোগাযোগ ফর্ম

নাম

ইমেল *

বার্তা *

Blogger দ্বারা পরিচালিত.
Javascript DisablePlease Enable Javascript To See All Widget