দৈনিক জনতা https://www.dainikjanata.com/2022/03/blog-post_22.html

ইউক্রেন সফরে তিন দেশের প্রধানমন্ত্রী : ইইউর নতুন নিষেধাজ্ঞায় রাশিয়া

 যুদ্ধের মধ্যেই কিয়েভে যাচ্ছেন তিন দেশের প্রধানমন্ত্রী
The prime ministers of the three countries are going to Kiev during the war


ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কির সাথে দেখা করতে কিয়েভ সফরে গেছেন চেক প্রজাতন্ত্র, পোল্যান্ড ও স্লোভেনিয়ার প্রধানমন্ত্রীরা। স্থানীয় সময় গতকাল মঙ্গলবার ইউরোপীয় ইউনিয়নের প্রতিনিধি হিসেবে জেলেনস্কির সাথে বৈঠক করেন তারা। চেক প্রধানমন্ত্রী পেত্র ফিয়ালার বরাতে আলজাজিরা এ তথ্য জানিয়েছে। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে দেয়া পোস্টে পেত্র ফিয়ালা লিখেছেন, ইউক্রেনের সার্বভৌমত্ব ও স্বাধীনতার প্রতি পুরো ইউরোপীয় ইউনিয়নের অকুণ্ঠ সমর্থন নিশ্চিত করাই এ সফরের উদ্দেশ্য। এ ছাড়া এ সফরে ইউক্রেন ও ইউক্রেনীয় নাগরিকদের জন্য ত্রাণসহায়তা তুলে দেয়া হবে।

পোলিশ প্রধানমন্ত্রীর শীর্ষ সহযোগী মিখাল বরজিক বলেন, ইউরোপীয় ইউনিয়নের পক্ষ থেকে এ তিন দেশের নেতা জেলেনস্কির সাথে কথা বলবেন। এ সময় ইউরোপীয় ইউনিয়নের পক্ষ থেকে ইউক্রেনকে ত্রাণসহায়তা উপহার দেবেন তারা। বরজিক আরো জানান, তিন দেশীয় প্রতিনিধিদলটি স্থানীয় সময় মঙ্গলবার সকাল ৮টার দিকে পোলিশ-ইউক্রেনীয় সীমান্ত অতিক্রম করেছে।

এ দিকে রাশিয়ার বিরুদ্ধে চতুর্থ দফার নিষেধাজ্ঞা অনুমোদন করেছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন। নতুন এ সিদ্ধান্তের আওতায় রাশিয়ায় বিলাসবহুল পণ্য রপ্তানি ও স্টিলের পণ্য আমদানি নিষিদ্ধ করা হয়েছে। ইউরোপীয় ইউনিয়নের সদস্যরাষ্ট্রগুলোর এ সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছে ইউরোপীয় কমিশন।

রুশ সেনাদের আত্মসমর্পণের আহ্বান জেলেনস্কির : অভিযানরত রুশ সেনাদের আত্মসমর্পণের আহ্বান জানিয়েছেন ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি। গত সোমবার রাতে টেলিভিশনে সম্প্রচারিত এক ভাষণে এই আহ্বান জানান তিনি। গত শতকের নব্বইয়ের দশকে চেচনিয়ার বিদ্রোহীদের দমন অভিযানে যত সংখ্যক রুশ সেনার মৃত্যু হয়েছিল, ইউক্রেন অভিযানের গত ২০ দিনে তার চেয়েও অধিক রুশ সেনা মৃত্যুবরণ করেছেন- উল্লেখ করে ভাষণে জেলেনস্কি বলেন, ‘আমি জানি, আপনারা বেঁচে থাকতে চান।’

হামলার তীব্রতা বাড়িয়েছে রাশিয়া, কিয়েভে কারফিউ ঘোষণা : রাশিয়ার গোলাবর্ষণে ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভে অন্তত দু’জনের প্রাণহানি ঘটেছে। কর্তৃপক্ষ বলেছে, আগ্রাসী বাহিনী ইউক্রেনের রাজধানী দখলে মরণ কামড় দিয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে মঙ্গলবার কিয়েভের মেয়র রাজধানীতে ৩৫ ঘণ্টার জন্য কারফিউ ঘোষণা করেছেন; যা শুরু হবে স্থানীয় সময় রাত ৮টা থেকে। মঙ্গলবার ভোরের কিছু আগে শহরের কেন্দ্রস্থলে দু’টি বড় বিস্ফোরণের শব্দ শোনা গেছে। সোমবার শেষ রাতের দিকে ইউক্রেনের সামরিক বাহিনী শত্রুপক্ষের একটি ড্রোনকে লক্ষ্যবস্তু বানানোর পর রাজধানীজুড়ে বুলেটের ঝলকানি দেখা গেছে।

আরো পড়ুন: সন্তানের সামনে গৃহবধূ গণধর্ষণের ঘটনায় আদালতে মামলা

পোল্যান্ডেও রাশিয়ার আগ্রাসনের আশঙ্কা : ইউক্রেনে রাশিয়ার যুদ্ধ প্রতিবেশী পোল্যান্ডের ঘাড়ে নিঃশ্বাস ফেলছে। ইউক্রেনে এই যুদ্ধ পোল্যান্ডে ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা করছেন অনেকে। দেশটি মূলত দুই দিক থেকে ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে উঠছে। এক দিকে রুশ আগ্রাসনে দেশ ছেড়ে পালানো ইউক্রেনীয় শরণার্থীদের সংখ্যা ক্রমান্বয়ে বাড়ছে। অন্য দিকে নিজ সীমান্তের কাছে ইউক্রেনের একটি সামরিক ঘাঁটি আক্রান্ত হয়েছে। বিবিসি বলছে, দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর ইউরোপের সবচেয়ে বড় শরণার্থী সঙ্কটে প্রথম সাড়া দিয়েছে পোল্যান্ড। গত ২০ দিনের যুদ্ধে এখন পর্যন্ত প্রায় ১৭ লাখের বেশি ইউক্রেনীয়কে আশ্রয় দিয়েছে দেশটি। সাংস্কৃতিক, ভাষাগত অথবা পারিবারিক বন্ধনের কারণে অনেক ইউক্রেনীয় পোল্যান্ডে যাওয়ার পর সেখানেই থেকে যাচ্ছেন। তবে কেউ কেউ পোল্যান্ড থেকে ইউরোপের অন্যান্য দেশেও পাড়ি জমিয়েছেন।

মে মাসে যুদ্ধ সমাপ্তির আশা করছে ইউক্রেন : আগামী মে মাসের শুরুর দিকে রাশিয়ার চলমান সামরিক অভিযান ও যুদ্ধ বন্ধ হতে পারে বলে জানিয়েছে ইউক্রেন। দেশটির সরকারের এক উপদেষ্টা বলছেন, এখন যে পরিস্থিতি চলছে, তাতে আগামী মে মাসের শুরুতে ইউক্রেনে আক্রমণের জন্য রাশিয়ার সামরিক বাহিনীর সরঞ্জাম শেষ হয়ে যাবে এবং এতে করে সে সময় যুদ্ধ বন্ধ হতে পারে। ইউক্রেন সরকারের ওই উপদেষ্টার নাম অলেকসি অ্যারেস্টোভিচ। তিনি ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কির চিফ অব স্টাফের উপদেষ্টা হিসেবে কাজ করছেন। সোমবার রাতে অলেকসি অ্যারেস্টোভিচ বলেন, আমি মনে করি মে মাসের পরে নয়, মে মাসের শুরুতেই আমরা একটি শান্তি চুক্তি পাবো। এ সময় তিনি সামনের মাসগুলোতে দু’টি সম্ভাব্য ফলাফলের রূপরেখা দেন।

টিভি টাওয়ারে রাশিয়ার হামলায় নিহত ৯ : ইউক্রেনের একটি টেলিভিশন টাওয়ারে রাশিয়ার সামরিক বাহিনীর চালানো হামলায় ৯ জন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরো ৯ জন। সোমবার পূর্ব ইউরোপের এই দেশটির পশ্চিমাঞ্চলীয় রিভনে শহরের বাইরে রুশ হামলায় হতাহতের এই ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছে বার্তাসংস্থা রয়টার্স ও এএফপি।

রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় টিভিতে খবর পড়ার মধ্যেই যুদ্ধের প্রতিবাদ : টানা প্রায় তিন সপ্তাহ ধরে ইউক্রেনে সামরিক অভিযান চালাচ্ছে রাশিয়া। মস্কোর এই আগ্রাসনের বিরুদ্ধে বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বিক্ষোভ করছেন রুশ নাগরিকরাও। বিপুল সংখ্যক রুশ বিক্ষোভকারীকে আটক করেও যে প্রতিবাদ দমানো যায়নি তার চিত্র উঠে এলো রাশিয়ার একটি রাষ্ট্র নিয়ন্ত্রিত টেলিভিশন চ্যানেলের অনুষ্ঠানে। চ্যানেল ওয়ান নামে ওই রুশ টিভি চ্যানেলে খবর পড়ার মধ্যেই ক্যামেরার সামনে যুদ্ধের প্রতিবাদ করেন এক নারী। চ্যানেলটিতে সেসময় সংবাদ পাঠের অনুষ্ঠানটি সরাসরি সম্প্রচারিত হচ্ছিল। সোমবার (১৪ মার্চ) সন্ধ্যায় ইভিনিং নিউজ প্রোগ্রামের সময় রাশিয়ার ওই রাষ্ট্র নিয়ন্ত্রিত টেলিভিশন চ্যানেলে এই ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছে বিবিসি। ব্রিটিশ এই সংবাদমাধ্যমটি বলছে, সংবাদ পাঠের সময় উপস্থাপকের পেছনে প্ল্যাকার্ড হাতে দাঁড়ান এক নারী সংবাদকর্মী।

আরো পড়ুন: তেলের ওপর নিষেধাজ্ঞা দিলে গ্যাস বন্ধের হুমকি রাশিয়ার

ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় নিহত ২০, একে-অপরকে দুষছে রাশিয়া-ইউক্রেন : ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলীয় দোনেতস্ক অঞ্চলে ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় ২০ জন সাধারণ মানুষ নিহত হয়েছেন বলে অভিযোগ করেছে রাশিয়া। হামলায় আরো ২৮ জন আহত হয়েছেন জানিয়ে মস্কোর দাবি, ইউক্রেনের সামরিক বাহিনী এই হামলা করেছে। অবশ্য দোনেতস্কে হামলা বা হতাহতের বিষয়ে ইউক্রেনকে দোষারোপ করলেও রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় কোনো প্রমাণ সামনে আনেনি। তবে ইউক্রেন ওই হামলার দায় অস্বীকার করে দাবি করেছে, রাশিয়ার সামরিক বাহিনীর নিক্ষেপ করা ক্ষেপণাস্ত্রে এসব মানুষ নিহত হয়েছেন। রয়টার্স স্বাধীনভাবে উভয় পক্ষের বিবৃতি যাচাই করতে পারেনি বলে জানিয়েছে বার্তাসংস্থাটি। সোমবার রুশ গণমাধ্যম জানায়, ইউক্রেনের সামরিক বাহিনীর ক্ষেপণাস্ত্র দোনেতস্কের কেন্দ্রে আঘাত হানে এবং এতে ২০ জন নিহত ও আরো অনেকে আহত হন।

ইউক্রেনের প্রতিরক্ষা শিল্পে হামলার ঘোষণা রাশিয়ার : ইউক্রেনের প্রতিরক্ষা শিল্পের সাথে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানগুলোর কারাখানা লক্ষ্য করে হামলা চালানো হবে বলে ঘোষণা দিয়েছে রাশিয়া। সোমবার দোনেতস্ক অঞ্চলে ইউক্রেনের একটি ব্যালাস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র হামলার প্রতিবাদে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে দাবি করেছে মস্কো। রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় এক অনলাইন পোস্টে জানিয়েছে, দোনেতস্ক অঞ্চলে ইউক্রেনের একটি টচকা-ইউ ক্ষেপণাস্ত্র আঘাত হানার পর দেশটির প্রতিরক্ষা শিল্পকে লক্ষ্য করে অভিযান চালানোর সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।


আরো পড়ুন:



অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

দৈনিক জনতা বাংলাদেশসহ বিশ্বের সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম