Articles by "অর্থনীতি"



বাংলাদেশের বিদ্যুৎ আমদানির ওপর কতটা নির্ভরশীল ?


আন্তর্জাতিক বাজারে জ্বালানি তেল ও গ্যাসের দাম বেড়ে যাওয়াকে এর প্রধান কারণ হিসাবে দেখিয়েছেন সরকারি কর্মকর্তারা। সেই সঙ্গে দেশীয় প্রাকৃতিক গ্যাসের সরবরাহ কমে যাওয়াকেও অন্যতম কারণ হিসাবে বলা হয়েছে।


যদিও কিছুদিন আগেই বাংলাদেশের সরকারের তরফ থেকে জানানো হয়েছিল, বর্তমানে মোট বিদ্যুৎ উৎপাদন ক্ষমতা রয়েছে ২৫ হাজার মেগাওয়াট। যদিও বিদ্যুতের চাহিদা রয়েছে প্রায় ১৪ হাজার মেগাওয়াট। কিন্তু জ্বালানি সংকটে সেটাও যোগান দিতে পারছেন না দেশের বিদ্যুৎ খাত।

সরকারের সর্বশেষ মহাপরিকল্পনায় ২০৪১ সালের মধ্যে যে ৬০ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনের লক্ষ্যস্থির করা হয়েছে, তাতে গ্যাসে ৩৫ শতাংশ, কয়লায় ৩৫ শতাংশ উৎপাদনের পরিকল্পনা নেয়া হয়েছিল। বাকী ত্রিশ শতাংশ তেল, জলবিদ্যুৎ ও নবায়নযোগ্য জ্বালানির মাধ্যমে।


বিদ্যুৎ মন্ত্রণালয়ের তথ্য অনুযায়ী, এখন জীবাশ্ম জ্বালানিচালিত ক্যাপটিভ এবং নবায়নযোগ্য জ্বালানি মিলিয়ে বিদ্যুৎ উৎপাদন সক্ষমতা রয়েছে ২৫ হাজার ৭০০ মেগাওয়াট।


তবে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সক্ষমতা থাকলেও গড় উৎপাদন হচ্ছে নয় হাজার মেগাওয়াট। এখন পর্যন্ত একদিনে (১৪ এপ্রিল) সর্বোচ্চ উৎপাদন হয়েছে ১৪ হাজার ৭৮২ মেগাওয়াট। কিন্তু জ্বালানি সংকটে সেটা ১১ হাজারে নেমে এসেছে। গত ২৫শে জুলাই দেশে উৎপাদন হয়েছে ১১৮১০ মেগাওয়াট, যেখানে চাহিদা ছিল ১৩৮৫০ মেগাওয়াট।

তেলভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র এখন গলার কাঁটা


বিদ্যুৎ উৎপাদনে পর্যাপ্ত গ্যাসের সরবরাহ না পাওয়ায় ডিজেলচালিত রেন্টাল ও কুইক রেন্টালের দিকে জোর দিকে শুরু করে সরকার। কিন্তু আন্তর্জাতিক বাজারে ডিজেলের দাম বেড়ে যাওয়ায় সেখানেও বড় ধাক্কা এসেছে।


ডিজেলচালিত বিদ্যুৎকেন্দ্র রয়েছে ১০টি, যেগুলোর উৎপাদন ক্ষমতা ১২৯০ মেগাওয়াট। এর বাইরে ৬৪টি কেন্দ্রে ব্যবহার করা হয় ফার্নেস অয়েল। এসব জ্বালানির পুরোটাই আমদানি নির্ভর। ডিজেলচালিত বিদ্যুৎকেন্দ্রগুলোর পেছনে প্রতি ইউনিট উৎপাদনে ৩৬ দশমিক ৮৫ টাকা খরচ হলেও সরকার বিক্রি করে মাত্র ৫ দশমিক ০৫ টাকায়। সবমিলিয়ে এই বছর বিদ্যুৎ খাতে সরকারকে ভর্তুকি দিতে হবে প্রায় ৩৫ হাজার কোটি টাকা।


আরো পড়ুন:



 


প্রথমবার ইভিএমে ভোট, সংশয়ে রাণীশংকৈলের তিন ইউপি'র ভোটাররা ! 


ঠাকুরগাঁওয়ের রাণীশংকৈল উপজেলার হোসেনগাঁও, বাচোর ও নন্দুয়ার ইউনিয়ন পরিষদে (ইউপি) নির্বাচন হবে ২৭ জুলাই। এখানে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ভোট নেওয়া হবে বলে ইতিমধ্যে ঘোষণা করা হয়েছে। তবে এভাবে ভোট দেওয়া নিয়ে সাধারণ ভোটারদের মধ্যে সংশয় দেখা দিয়েছে।


উপজেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা গেছে, তিনটি ইউনিয়নে মোট ১৫ জন চেয়ারম্যান প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। আর সাধারণ সদস্য পদে ৮৭ ও সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে ৪৫ প্রার্থী আছেন। এ তিন ইউনিয়নে মোট ভোটার ৬১ হাজার ১৪৮ জন।


নন্দুয়ার ইউনিয়নের সন্ধ্যারই গ্রামের নির্মাণ-মিস্ত্রি নিরব হাসান রাজু, বনগাঁও এলাকার কৃষক আমিন, গাজীরহাটের রাজু ইসলামসহ অনেকে বলেন, জীবনে প্রথমবার ইভিএমে ভোট দেবেন। এ নিয়ে তাঁদের বেশ কৌতূহল রয়েছে। তবে তাঁরা এ মেশিনের মাধ্যমে পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দিতে পারবেন কি না, সঠিকভাবে মেশিন ব্যবহার করতে পারবেন কি না তা নিয়ে সংশয় রয়েছে তাঁদের।


একইভাবে হোসেনগাঁও ইউনিয়নের উত্তরগাঁও গ্রামের দুলাল, কলিগাঁও এলাকার রুহুল আমিন ও হঠাৎ বস্তির ছাত্তার বলেন, এমন মফস্বল এলাকায় ইভিএম দিয়ে ভোট নেওয়ার সিদ্ধান্ত ঠিক হয়নি। ভোটের কমপক্ষে এক মাস আগে থেকে ইভিএমের ব্যবহার সমন্ধে ধারণা দেওয়ার জন্য পাড়ামহল্লায় প্রচার চালানো উচিত ছিল। হঠাৎ একটি নতুন মেশিনের মাধ্যমে ভোট দেওয়াটা একটু ঝামেলার। তা ছাড়া কী করে কাকে ভোট দেবেন তা তো আর একদিনে বুঝবেন না।


বাঁচোর ইউনিয়নের আমজুয়ান এলাকার রুহুল কুদ্দুস ও মীরডাঙ্গীর উজ্জ্বল বলেন, তাঁরা শুনেছেন ইভিএমে এক জায়গায় ভোট দিলে আরেক জায়গায় চলে যায়। যদি তাই সত্যি হয় তাহলে তো ভোট দেওয়া আর না দেওয়া সমান। পছন্দের প্রার্থীকে যদি ভোট দিতে না পারেন তাহলে ভোটকেন্দ্রে যাওয়ার দরকার নেই বলে মন্তব্য করেন তাঁরা।


এ বিষয়ে হোসেনগাঁওয়ের স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী নাসির উদ্দীন (মোটরসাইকেল প্রতীক) বলেন, ‘সাধারণ ভোটাররা জীবনের প্রথম ইভিএমে ভোট দেবেন, তা নিয়ে একটু সংশয় রয়েছে।’


একই ইউনিয়নের আ.লীগের বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থী (ঘোড়া প্রতীক) এম জি রব্বানী বলেন, ‘ইভিএমে ভোট দেবেন ঘোড়ায়, ভোট যাবে নৌকায়, এমন প্রচার চলছে ইউনিয়নজুড়ে।’


নন্দুয়ারের চেয়ারম্যান প্রার্থী জমিরুল ইসলাম (মোটরসাইকেল প্রতীক) বলেন, ‘ভোট কী হবে তা বলতে পারছি না। এমনিতে ইভিএম, অন্যদিকে আওয়ামী লীগের নেতারা তাঁদের নির্বাচনী বিভিন্ন সভায় ভোটারদের নৌকা ছাড়া অন্য কোথাও ভোট দিতে নিষেধ করছেন।’


তবে তিন ইউনিয়নের নৌকা প্রতীকের প্রার্থী মতিউর রহমান, আব্দুল বারি ও জিতেন্দ্র নাথ রায় বলেন, ভোট অবশ্যই সুষ্ঠু হবে এবং ইভিএমে কোনোভাবেই কারচুপি করার সুযোগ নেই। আসলে স্বতন্ত্র প্রার্থীরা নিশ্চিত পরাজিত হবেন বলেই ইভিএম নিয়ে অপপ্রচার করছেন।


এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা নুর-ই আলম বলেন, ‘ইভিএমে ভোট অবশ্যই ভালো হবে। তা ছাড়া ভোট দেওয়ার পদ্ধতি সমন্ধে ধারণা দিতে ইউনিয়নগুলোতে ইভিএমের প্রদর্শনী চলছে।’


উপজেলার হোসেনগাঁও, বাঁচোর ও নন্দুয়ার ইউপিতে নির্বাচন হবে ২৭ জুলাই। এই তিন ইউনিয়নে মোট ভোটার আছেন ৬১ হাজার ১৪৮ জন।


আরো পড়ুন:





ঝিনাইগাতীর গজনী পর্যটন কেন্দ্রের প্রবেশ পথে টোল আদায় ঘর নেই,  


ঝিনাইগাতী উপজেলার পর্যটন কেন্দ্র গজনী অবকাশের প্রবেশ পথে  টোল আদায় ঘর নেই । ফলে অবকাশ কেন্দ্রে আগত দর্শনার্থীদের কাছ থেকে টোল আদায়ের ক্ষেত্রে নানান জটিলতার পাশাপাশি   চরম বিপাকে পরতে হচ্ছে অবকাশ কেন্দ্রের ইজারাদারকে। জানা গেছে, ভারতের মেঘালয় রাজ্যের সীমান্ত ঘেঁষে অবস্থিত   প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের  লীলাভূমি খনিজ  ও বনজ সম্পদে ভরপুর  ঝিনাইগাতী উপজেলার গারো পাহাড়। 

এ গারো পাহাড়ের সৌন্দর্যকে   ঘিরে  ১৯৯৩ সালে তৎকালীন প্রাকৃতিক প্রেমি জেলা প্রশাসক আতাউর রহমান মজুমদার প্রায় ৫০ একর পাহাড়ি জমির উপর  গড়ে তুলেন একটি পিকনিক স্পর্ট। মৌজার নামানুসারে এর নামকরন করা হয়  গজনী অবকাশ কেন্দ্র। কেন্দ্রটি গড়ে তোলার পর থেকে  দর্শনার্থীদের ঢলনামে এ অবকাশ কেন্দ্রে। 

সারাদেশ থেকে আগত দর্শনার্থীদের ভীড়ে মুখরিত হয়ে উঠে গজনী অবকাশ বিনোদন কেন্দ্রটি।  

 আগত দর্শনার্থীদের কাছ  টোল আদায়ের লক্ষে,উপজেলা পরিষদ ভবনের সামনে রাস্তার পাশে একটি টোল আদায় ঘর নির্মাণ করা হয়। এ ঘরে বসে  গত প্রায় ২ যুগ ধরে ভ্রমনপিপাষুদের কাছ থেকে টোল আদায় করে আসছিলো উপজেলা প্রশাসন। জানা গেছে, চার দিক থেকে রাস্তা- ঘাটের উন্নয়ন হওয়ায় উপজেলা পরিষদের সামনের টোল আদায় ঘরটি অকার্যকর হয়ে পরে। এছাড়া গত কয়েকবছর ধরে  অবকাশ কেন্দ্রটি প্রশাসনের পক্ষ থেকে  ইজারা দেয়া হয়েছে। 

জানা গেছে, এ অবকাশ কেন্দ্র থেকে প্রতিবছর সরকারের ঘরে আসছে অর্ধকোটি টাকার রাজস্ব। 

কিন্তু অবকাশ কেন্দ্রের প্রবেশ প্রথে আজো নির্মিত হয়নি টোল আদায় ঘর। ফলে ইজারাদারের লোকদের টোল আদায়ের ক্ষেত্রে নানা জটলা, বিড়ম্বনা ও ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে। গজনী অবকাশ কেন্দ্রের  ইজারাদার মোঃ ফরিদ আহম্মেদ বলেন,গজনী অবকাশ কেন্দ্রের প্রবেশ পথে টোল আদায় ঘর নির্মাণ করা জরুরি হয়ে পরেছে। অন্যথায়  লোকসানে পড়তে হবে তাদের। 

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ফারুক আল মাসুদ বলেন, জেলা প্রশাসনের সাথে কথা বলে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হবে। 


আরো পড়ুন:


 



বেনাপোল চেকপোস্টে ৮শ’ গ্রাম সোনাসহ পাসপার্ট যাত্রী আটক


বেনাপোল চেকপোষ্ট এলাকা থেকে সাড়ে ৮শ’ গ্রাম সোনাসহ উম্মে সালমা (২৬) নামে এক পাসপোর্ট যাত্রীকে আটক করেছে বেনাপোল কাস্টমস গোয়েন্দা ও তদন্ত সার্কেল। আটক উম্মে সালমার বাড়ী ঢাকার ডেমরা থানার সারুলিয়া এলাকায়। বুধবার সকাল সাড়ে ১১ টার দিকে বেনাপোল চেকপোস্ট থেকে তাকে আটক করা হয়েছে। 

বেনাপোল কাস্টমস গোয়েন্দা সহকারী উপ-পরিচালক মনিরুজ্জামান চৌধুরী বলেন, বুধবার সকালে এক জন পাসপোর্ট যাত্রী ভারতে পাচারের উদ্দেশ্যে বিপুল পরিমান স্বর্ণ নিয়ে যাচ্ছে। প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী আমরা সকাল থেকে চেকপোস্টে অবস্থান করি এবং উম্মে সালমা নামে এক যাত্রীকে নজরদারীতে রাখি। 

যাত্রীর কাস্টমস ইমিগ্রেশনের কাজ সম্পন্নের পর ভারতে প্রবেশের পূর্বে তার গতিরোধ করে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করি। প্রথমে স্বিকার না হলেও পরবর্তিতে তিনি তার ব্যাগের ভিতর থেকে পাকা সোনার তৈরী ১০টি চুড়ি ও একটি মোটা চেইন বের করে দেন। আটককৃত সোনার মোট ওজন ৮৪৩ গ্রাম। মোট মুল্য ৫৫ লাখ টাকা। আটক সোনা বেনাপোল কাস্টমস হাউসে জমা দিয়ে যাত্রীর বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। 


আরো পড়ুন:


 


বেনাপোলে ৩০ হাজার ইউএস ডলারসহ নারী আটক


বেনাপোল চেকপোস্ট প্যাসেন্ঞ্জার টার্মিনাল এলাকা থেকে ৩০ হাজার আমেরিকান (ইউ এস) ডলারসহ জেরিন সুলতানা (৩৮) নামে এক নারীকে আটক করেছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) সদস্যরা।

মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৭টায় বেনাপোল বন্দরের প্যাসেন্ঞ্জার টার্মিনাল এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয়। আটক জেরিন সুলতানা সাভার থানার আশুলিয়া এলাকার নাজিম উদ্দিন এর মেয়ে।


যশোর-৪৯ বিজিবি ব‍্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল শাহেদ মিনহাজ সিদ্দিকী বলেন, গোপন সংবাদে জানতে পারি এক নারী বিপুল পরিমাণ আমেরিকান ডলার নিয়ে পাসপোর্ট যোগে বাংলাদেশে প্রবেশ করবে। ভারতের হন্ডি ব্যবসায়ী শ্রী গোপাল মারকুইজ ইসস্ট্রইচ কোলকাতা এর বহনকারী হিসেবে জেরিন সুলতানা কাজ করে। হন্ডি ব্যবসায়ী শ্রী গোপাল অভিনব কায়দায় ল্যাগেজ এবং শরীরের ফিটেড অবস্থায় পাচার করে থাকে। 

এমন সংবাদের ভিত্তিতে অধিনায়ক এর নির্দেশে বেনাপোল আইসিপি ক্যাম্পের সদস্যরা একটি টহলদল প্যাসেন্ঞ্জার টার্মিনালের সামনে অভিযানে বসে। পরে সন্ধ্যা ৭টার দিকে ঐ নারী বাংলাদেশে প্রবেশ করে ইমিগ্রেশন ও কাস্টমস কার্যক্রম শেষ করে টার্মিনালের সামনে আসলে তাকে ক্যাম্পে নিয়ে তল্লাশি করলে ৩০ হাজার আমেরিকান ডলার পাওয়া যায়। যার বাংলাদেশী মুল্য ২৯ লক্ষ ৪০ হাজার টাকা। তার বিরুদ্ধে মামলা দিয়ে বেনাপোল পোর্ট থানায় সোপর্দ করা হয়েছে।


আরো পড়ুন:


 



গ্যাস সরবরাহের নিশ্চয়তা দিতে পারবে না রাশিয়া


দিকে রাশিয়ার গ্যাস কোম্পানি গ্যাজপ্রম ইউরোপের গ্রাহকদের জানিয়েছে, 'অস্বাভাবিক' পরিস্থিতির কারণে তারা আর গ্যাস সরবরাহের নিশ্চয়তা দিতে পারছে না।


একটি চিঠিতে তারা জানিয়েছে, গত ১৪ই জুন থেকে তারা সরবরাহ কমাতে বাধ্য হয়েছে।

অন্যদিকে জাপান জানিয়েছে, তেল ও জ্বালানি সরবরাহের সাখালিন-২ প্রজেক্ট পরিচালনার জন্য নতুন যে কোম্পানিকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে, তারা এখনো কোন যোগাযোগ করেনি।


গত জুন মাসে একটি ডিক্রি জারি করে জাপানে গ্যাসের সরবরাহের দায়িত্ব নতুন একটি কোম্পানিকে দেন প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। এর ফলে জাপানে গ্যাসের সরবরাহ বন্ধের ঝুঁকি তৈরি হয়েছে।


নতুন বোমা হামলায় ছয়জন নিহত

রাশিয়ার সৈন্যরা নতুন করে তাদের বোমা বর্ষণ বাড়িয়ে দিয়েছে। পূর্ব ইউক্রেনের শহর তোরেস্ক শহরে বোমা হামলায় অন্তত ছয়জনের মৃত্যু হয়েছে।


ইউক্রেনের সেনাবাহিনী জানিয়েছে, রাশিয়ার সৈন্যরা স্লোভিয়ানস্কে হামলা চালানোর জন্য পুনরায় সংঘবদ্ধ হতে চলেছে।


ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলের ডনবাস অঞ্চল দখলের যে পরিকল্পনা নিয়েছে রাশিয়া, এটা সেই পরিকল্পনারই অংশ। দেশের অন্য এলাকায় রাশিয়ার হামলা ঠেকিয়ে দেয়ার পর তারা এখন পূর্বাঞ্চল দখলে জোর দিয়েছে।


গুগলকে আবারো জরিমানা করলো মস্কো, রাশিয়া ছাড়ছে এইচএন্ডএম

যুদ্ধ শুরুর পর থেকেই নাগরিকদের জন্য তথ্য পাওয়ার সুবিধা নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা করছে রাশিয়া।

মস্কো যেসব জিনিস অবৈধ বলে মনে করে, এমন তথ্য সরিয়ে না নেয়ার কারণে গুগলকে ৩৭ কোটি ডলার জরিমানা করেছে মস্কোর একটি আদালত।


রাশিয়া থেকে গুগল যতো অর্থ আয় করে, এটি তার প্রায় ১০ শতাংশ।গত বছরেও গুগলকে একবার জরিমানা করেছিল রাশিয়া।

অন্যদিকে বিশ্বের অন্যতম বড় পোশাক সামগ্রী বিক্রেতা প্রতিষ্ঠান এইচএন্ডএম ঘোষণা দিয়েছে, তারা রাশিয়া থেকে বেরিয়ে যাচ্ছে। তবে দোকানে থাকা কাপড় বা অন্যান্য সামগ্রী বিক্রি শেষ করার জন্য দোকানগুলো আপাতত খোলা রাখা হবে।


ইউক্রেনে রাশিয়া হামলা শুরু করার পর গত মার্চ মাসে রাশিয়ায় ব্যবসা স্থগিত করার ঘোষণা দিয়েছিল প্রতিষ্ঠানটি।


আরো পড়ুন:


 




শারজাহ ফেরত যাত্রীর কাছ থেকে ৪ কেজি সোনা উদ্ধার


চট্টগ্রামের শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে চার কেজির বেশি সোনাসহ এক যাত্রীকে আটক করা হয়েছে।


আজ বুধবার সকালে উড়োজাহাজ থেকে ওই যাত্রীকে আটক করেন শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা।

আটক যাত্রীর নাম মো. সাইফুল ইসলাম। তাঁর বাড়ি চট্টগ্রামের লোহাগাড়া উপজেলায়। তিনি সংযুক্ত আরব আমিরাতের শারজাহ থেকে এয়ার এরাবিয়ার একটি ফ্লাইটে দেশে আসেন।

শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তর জানায়, সাইফুলের কাছে ৩ কেজি ৯৪৪ গ্রাম ওজনের সোনার বার পাওয়া যায়। এ ছাড়া তাঁর কাছে স্বর্ণালংকারও পাওয়া যায়। সব মিলিয়ে তাঁর কাছ থেকে চার কেজির বেশি সোনা উদ্ধার করা হয়, যার বাজারমূল্য ৩ কোটি ২০ লাখ টাকা।




শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা জানান, শারজাহ থেকে এক যাত্রী সোনার বার নিয়ে দেশে আসবেন বলে তথ্য পাওয়া যায়। এ তথ্য পেয়ে অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মোবারা খানম গতকাল মঙ্গলবার রাতে ঢাকা থেকে শুল্ক গোয়েন্দাদের একটি দলকে চট্টগ্রামে পাঠিয়ে দেন।

শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তর সূত্র জানায়, আজ সকালে সোয়া সাতটার পর এয়ার এরাবিয়ার একটি ফ্লাইট চট্টগ্রামের শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে। উড়োজাহাজটি বিমানবন্দরে অবতরণের পরই শুল্ক গোয়েন্দারা সন্দেহভাজন যাত্রীকে তল্লাশি করেন। সোনাসহ সাইফুলকে উড়োজাহাজ থেকে আটক করা হয়।


অধিদপ্তরের উপপরিচালক এ কে এম সুলতান মাহমুদ ঘটনার বর্ণনা দিয়ে প্রথম আলোকে বলেন, তল্লাশির সময় যাত্রী সাইফুলের কোমরে কালো টেপে মোড়ানো অবস্থায় ৩৪টি সোনার বার পাওয়া যায়। এ ছাড়া তাঁর কাছে স্বর্ণালংকার পাওয়া যায়।

আটক যাত্রীর বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে বলে জানায় শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তর।


আরো পড়ুন:

Afran Nisho: ভারতীয় ওয়েব সিরিজে আফরান নিশো
জয়নাল হত্যা মামলার সব আসামি খালাস; পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থার নির্দেশ
ফেনীর দাগনভূঁঞায় মোটরসাইকেল চোরাই চক্রের ৩ সদস্য গ্রেফতার 
ফেনীর ফুলগাজীতে দুই মহিলা ছিনতাইকারী গ্রেফতার
বালিয়াডাঙ্গীতে এক পরিবারের চার সন্তানই প্রতিবন্ধী
পুতিনের বেপরোয়া পদক্ষেপ ইউরোপকে সরাসরি হুমকি দিচ্ছে 
Russia Ukrain: বাংলাদেশি জাহাজে হামলার জন্য ইউক্রেনকে দুষছে রাশিয়া 
সাড়ে ১২ কোটি মানুষ টিকার আওতায়
নিয়ন্ত্রণহীন ভোজ্য তেলের বাজার
ইউক্রেনে নাজুক অবস্থায় পড়ে গেছি: প্রতিমন্ত্রী


Holy Foods ads

Holy Foods ads

যোগাযোগ ফর্ম

নাম

ইমেল *

বার্তা *

Blogger দ্বারা পরিচালিত.
Javascript DisablePlease Enable Javascript To See All Widget