Articles by "রাজনীতি"

 


শার্শা সাব-রেজিস্ট্রী অফিসের কর্মচারী ও দলিল লেখক গনের প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত 

যশোরের শার্শা সাব-রেজিস্ট্রী অফিসের স্থায়ী কর্মচারী, নকল নবীশ ও দলিল লেখকদের দক্ষতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

সোমবার সকাল ১১টায় উপজেলা অডিটোরিয়ামে এ প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। 

শার্শা উপজেলার সাব-রেজিস্টার অঞ্জু দাস'র সভাপতিত্বে প্রশিক্ষণ কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন শার্শা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নারায়ন চন্দ্র পাল। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, শার্শা উপজেলার সহকারি কমিশনার (ভূমি) ফারজানা ইসলাম, বাঘারপাড়া উপজেলার সাব-রেজিস্টার রিপন মুন্সি, নওয়াপাড়া উপজেলার সাব-রেজিস্টার অজয় কমার সাহা ও ঝিকরগাছা উপজেলার সাব-রেজিস্টার নারায়ন মন্ডল।

প্রধান অতিথি নারায়ন চন্দ্র পাল তার বক্তব্যে মুসলিম ও হিন্দু উত্তরাধিকার আইনের  বিস্তারিত আলোচনা করেন। জমি ক্রেতা-বিক্রেতারা যাতে রেজিস্ট্রি অফিসে হয়রানির শিকার না হন, সে বিষয়ে কর্মকর্তা-কর্মচারিসহ দলিল লেখকদের আন্তরিক হতে হবে বলে জানান। 

বিশেষ অতিথি শার্শা উপজেলার সহকারি কমিশনার (ভূমি) ফারজানা ইসলাম  নামজারিসহ ভূমি অফিসের বিভিন্ন কার্যক্রম ও এসংক্রান্ত বিধি-বিধান নিয়ে আলোচনায় বলেন, নামজারিসহ ভূমি অফিসের সকল কার্যক্রম এখন অনলাইনে সম্পাদন হচ্ছে। সুতরাং সেবা পেতে আসা লোকজন সহজেই ভূমি অফিসের সেবা পাচ্ছে।

 
এছাড়া বাঘারপাড়া উপজেলার সাব-রেজিস্টার রিপন মুন্সি বিভিন্ন প্রকার দলিলের প্রচলিত ভুল সম্পর্কে আলোচনা করেন। 

তিনঘন্টাব্যাপী প্রশিক্ষণ কর্মশালায় শার্শা উপজেলার সাব রেজিস্ট্রি অফিসের কর্মকর্তা, অফিস সহকারী, নকল নবীশগন ও দলিল লেখকগন উপস্থিত ছিলেন।

আরো পড়ুন:


 



পদ্মা সেতু হওয়াতে বিএনপি খুশি হননি- তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী 

আমি মুক্তিযুদ্ধ দেখেছি। মুক্তিযুদ্ধের পর মানুষের মধ্যে যে আনন্দ-উল্লাস ছিল, পদ্মা সেতুর উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে দীর্ঘ ৫০ বছরের পথচলায় বাঙালি যেন আজ আবার সেই একইরকম আনন্দ-উল্লাস করছে।'

আজ শনিবার (২৫ জুন) সকালে পদ্মা সেতুর মাওয়া প্রান্তে আয়োজিত সুধী সমাবেশস্থলে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ছোট বেলায় ঈদের চাঁদ দেখে আনন্দটা যেমন অনুভব করতাম, আজ ঠিক সেই চাঁদ দেখার চেয়েও বেশি আনন্দ লাগছে। সমস্ত ষড়যন্ত্র ছিন্ন করে বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা আজ পদ্মা সেতুকে বাস্তবে রূপ দিয়েছেন।

'বাঙালি হার না মানা জাতি' উল্লেখ করে সম্প্রচারমন্ত্রী বলেন, 'আমরা যে হার মানি না, সমস্ত ষড়যন্ত্রকে ছিন্ন করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তা দেখিয়ে দিয়েছেন। বঙ্গবন্ধু যেমন স্বাধীনতা এনে দিয়েছেন, বঙ্গবন্ধুকন্যাও দেখিয়ে দিয়েছেন যে, তার নেতৃত্বে বাঙালি মাথা নত করে না, সমস্ত প্রতিবন্ধকতা উপড়ে ফেলে বাঙালি মাথা উঁচু করেই চলতে পারে, সমস্ত প্রতিকূলতা জয় করে লক্ষ্যে পৌঁছাতে পারে।'

বিএনপি প্রসঙ্গে তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী বলেন, পদ্মা সেতু বাস্তবায়িত হওয়ায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীও অভিনন্দন জানালেও বিএনপি অভিনন্দন জানাতে পারেনি, যা দুঃখজনক। সারাদেশের মানুষ পদ্মা সেতু হওয়াতে খুশি হলেও বিএনপি খুশি হয়নি।

আরো পড়ুন:


 



মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক লেখা গ্রন্থ '‘বিজয়ের ময়দানে রানীশংকৈল’'এর মোড়ক উন্মোচন


মুক্তিযুদ্ধের বিভিন্ন যুদ্ধের ঘটনা নিয়ে জেলার রাণীশংকৈল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সোহেল সুলতান জুলকার নাইন স্টিভ'র সম্পাদনা ও উপজেলা পরিষদের সহযোগিতায় মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক গ্রন্থ ‘বিজয়ের ময়দানে রাণীশংকৈল’ বইয়ের মোড়ক উম্মোচন করা হয়েছে।

উপজেলার ৬০ জন মুক্তিযোদ্ধার নিজেদের লেখা জীবনকাল নিয়ে প্রকাশিত ‘বিজয়ের ময়দানে রানীশংকৈল’ মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক গ্রন্থ এটি। বীর মুক্তিযোদ্ধাদের ৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ, যুদ্ধকালীন তাদের পরিবারদের প্রতি নির্যাতন এবং বীরাঙ্গনাদের প্রতি যুদ্ধকালীন পাশবিক অত্যাচার এসব বিষয় নিয়ে তাদের কাছ থেকে লিখিত পাণ্ডুলিপি নিয়ে এই বইটির প্রকাশিত হয়েছে।





ঠাকুরগাঁওয়ের রানীশংকৈলে উপজেলা মিলনায়তনে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক গ্রন্থ ‘বিজয়ের ময়দানে রানীশংকৈল’ বই এর মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

সোমবার (৩০ মে) দুপুরে উপজেলা মিলনায়তনে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে বইটির মোড়ক উম্মোচন করেন জেলা প্রশাসক মাহবুবুর রহমান।

মোড়ক উম্মোচনকালে জেলা প্রশাসক মাহবুবুর রহমান বলেন, মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় এই গ্রন্থ পরবর্তী প্রজন্মের কাছে মূল্যবান দলিল হিসেবে যুক্ত হলো। নতুন প্রজন্ম জেগেছে। মুক্তিযুদ্ধের চেতনার যে গণজোয়ার আজ মিলিত হয়েছে তা অবিস্মরণীয়।




এসময় গেস্ট অব অনার হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান শাহরিয়ার আজম মুন্না।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সহকারী কমিশনার ভূমি ইদ্রজিৎ সাহা, রানীশংকৈল উপজেলা আ.লীগ সভাপতি সইদুল হক, পৌরমেয়র আলহাজ্ব মোস্তাফিজুর রহমান মোস্তাক , মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান শেফালী বেগম, আ.লীগ সম্পাদক তাজউদ্দীন আহাম্মেদ, পৌর আ.লীগ সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম, মুক্তিযোদ্ধা হাবিবুর রহমান প্রমূখ।


এছাড়াও প্রিন্ট ইলেকট্রিক মিডিয়ার কর্মরত সংবাদকর্মী, উপজেলার বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারীরাসহ বীরমুক্তিযোদ্ধা, বীরাঙ্গনা,  রাজনৈতিক, সামাজিক ও সুধীমহল উপস্থিত ছিলেন৷ অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন সহকারি অধ্যাপক প্রশান্ত বসাক। 

অনুষ্ঠান শেষে আমন্ত্রিত অতিথিদের একটি করে বই উপহার দেয়া হয়।

নিবার্হী কর্মকর্তা (ইউএনও) সোহেল সুলতান জুলকার নাইন স্টিভ অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব বক্তব্যে বলেন, রাণীশংকৈলের মুক্তিযোদ্ধাদের নিয়ে এ গ্রন্থ একটি ঐতিহাসিক দলিল হিসেবে বিদ্যমান থাকবে। যারা মুক্তিযুদ্ধ ও বাংলাদেশের ইতিহাস নিয়ে গবেষণা করবেন তাদের কাছে এ গ্রন্থ মূল্যবান রেফারেন্স হিসেবে বিবেচিত হবে।


আরো পড়ুন:


  1. নিয়ন্ত্রণহীন ভোজ্য তেলের বাজার
  2. Afran Nisho: ভারতীয় ওয়েব সিরিজে আফরান নিশো
  3. জয়নাল হত্যা মামলার সব আসামি খালাস; পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থার নির্দেশ
  4. ফেনীর দাগনভূঁঞায় মোটরসাইকেল চোরাই চক্রের ৩ সদস্য গ্রেফতার 
  5. ফেনীর ফুলগাজীতে দুই মহিলা ছিনতাইকারী গ্রেফতার
  6. বালিয়াডাঙ্গীতে এক পরিবারের চার সন্তানই প্রতিবন্ধী
  7. পুতিনের বেপরোয়া পদক্ষেপ ইউরোপকে সরাসরি হুমকি দিচ্ছে 
  8. Russia Ukrain: বাংলাদেশি জাহাজে হামলার জন্য ইউক্রেনকে দুষছে রাশিয়া 
  9. সাড়ে ১২ কোটি মানুষ টিকার আওতায়
  10. ইউক্রেনে নাজুক অবস্থায় পড়ে গেছি: প্রতিমন্ত্রী




 



বেনাপোল সিএন্ডএফ এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশন নির্বাচনে সভাপতি শামছুর রহমান সম্পাদক লতা


ন্দর ব্যবহারকারী সংগঠন বেনাপোল কাস্টমস ক্লিয়ারিং এন্ড ফরোয়ার্ডিং (সিএন্ডএফ) এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের ত্রি-বার্ষিক নির্বাচনে শামছুর রহমান-খায়রুজ্জামান মধু-এমদাদুল হক লতা পরিষদের ১৮ জন প্রার্থী এবং ‘ঐক্য পরিষদের’ ব্যানারে ‘ছাতা’ প্রতীকের সজন-ভারত-ফজলু পরিষদের আবু তাহের ভারত জয় লাভ করেছে।


সোমবার (৩০ মে) সকাল ৮টা বিকাল ৪টা পযর্ন্ত গ্রহণ শেষে ভোটগণনা শেষে রাত সাড়ে ৯টার সময় ফলাফল ঘোষণা করেন নির্বাচন কমিশনার। নির্বাচনে ‘সমমনা সম্মিলিত সমন্বয় পরিষদের’ ব্যানারে ‘আনারস’ প্রতীকে শামছুর রহমান- খায়রুজ্জামান মধু-এমদাদুল হক লতা নেতৃত্বাধীন সমমনা পরিষদের ১৮ জন প্রাথী জয়ী হয়েছেন। এবং ‘ঐক্য পরিষদের’ ব্যানারে ‘ছাতা’ প্রতীকের সজন-ভারত- ফজলু পরিষদের আবু তাহের ভারত জয়ী হয়েছেন।

নব নির্বাচিত সভাপতি শামছুর রহমান পেয়েছেন ৩৯০ ভোট, সহ-সভাপতি খায়রুজ্জামান মধু পেয়েছেন ৩২৯ ও সাধারণ সম্পাদক এমদাদুল হক লতা পেয়েছেন ৪১৯ ভোট।

সোমবার (৩০ মে) সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত একটানা শান্তিপূর্ণভাবে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়।

এতে দুটি প্যানেলের ‘সমমনা সম্মিলিত সমন্বয় পরিষদের’ ব্যানারে ‘আনারস’ প্রতীকে লড়ছেন শামছুর রহমান-মধু-লতা পরিষদ, অন্য দিকে ‘ঐক্য পরিষদের’ ব্যানারে ‘ছাতা’ প্রতীকে লড়ছেন সজন-ভারত-ফজলু পরিষদ।

সিএন্ডএফ এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের ত্রি-বার্ষিক নির্বাচনে বিজয়ী সভাপতি শামছুর রহমান বলেন, আমাদের ভোট দিয়ে বিপুল ব্যবধানে জয়ী করায় সকল সিএন্ডএফ এজেন্টস সদস্য ও ভাই-বোনদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। তাদের মূল্যবান রায়ে আমরা ব্যবসায়ীসহ সংশ্লিষ্ট সকলের কল্যাণে কাজ করার সুযোগ পেয়েছি। সকলের সহযোগিতা ও পরামর্শ নিয়ে আমরা কাজ করে যাবো।

নির্বাচন কমিশনার ফারুক হোসেন উজ্জ্বল বলেন, কোন রকম অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়াই সুষ্ঠু ও সুন্দর ভাবে ভোট গ্রহণ শেষ হয়েছে। নির্বাচনে মোট ৭২৪ জন ভোটারের মধ্যে ৫৮০ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছেন।


আরো পড়ুন:

  1. ফেনীর ফুলগাজীতে দুই মহিলা ছিনতাইকারী গ্রেফতার
  2. Afran Nisho: ভারতীয় ওয়েব সিরিজে আফরান নিশো
  3. জয়নাল হত্যা মামলার সব আসামি খালাস; পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থার নির্দেশ
  4. ফেনীর দাগনভূঁঞায় মোটরসাইকেল চোরাই চক্রের ৩ সদস্য গ্রেফতার 
  5. বালিয়াডাঙ্গীতে এক পরিবারের চার সন্তানই প্রতিবন্ধী
  6. পুতিনের বেপরোয়া পদক্ষেপ ইউরোপকে সরাসরি হুমকি দিচ্ছে 
  7. Russia Ukrain: বাংলাদেশি জাহাজে হামলার জন্য ইউক্রেনকে দুষছে রাশিয়া 
  8. সাড়ে ১২ কোটি মানুষ টিকার আওতায়
  9. নিয়ন্ত্রণহীন ভোজ্য তেলের বাজার
  10. ইউক্রেনে নাজুক অবস্থায় পড়ে গেছি: প্রতিমন্ত্রী


 



যুবলীগে অনুপ্রবেশকারীদের রাজত্ব বন্ধ করতে হবে |


দীর্ঘ ১৯ বছর পর অনুষ্ঠিত হয়েছে চট্টগ্রাম উত্তর জেলা যুবলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন। সম্মেলনকে ঘিরে পদ প্রত্যাশীদের তোরন, ব্যানার, ফেস্টুন ও বিলবোর্ডে ছেয়ে গেছে চট্টগ্রামের হাটহারীতে পার্বতী স্কুল মাঠ প্রাঙ্গণ ও উপজেলা সমূহ।

আজ রোববার (২৯ মে) চট্টগ্রামের হাটহারীতে পার্বতী স্কুল মাঠে এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

এর আগে জাতীয় সংগীত, পতাকা উত্তোলন, বেলুন ও শান্তির প্রতীক পায়রা উড়িয়ে সম্মেলনের উদ্বোধন করা হয়।

উত্তরজেলা যুবলীগের সভাপতি এস এম আল মামুনের সভাপতিত্বে ও সা: সম্পাদক এস এম রাশেদুল আলমের সঞ্চালনায় সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে শুভ উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস্ পরশ। প্রধান বক্তা ছিলেন কেন্দ্রীয় যুবলীগের সা: সম্পাদক মোঃ মাইনুল হোসেন খান নিখিল।

সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ইঞ্জি: মোশাররফ হোসেন এমপি, সাংগঠনিক সম্পাদক ও হুইপ আবু সাঈদ আল মাহমুদ এমপি ও ভার্চুয়ালে উপস্থিত ছিলেন যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ এমপি।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা বাংলাদেশকে সম্মান এনে দিয়েছেন, সফলতা এনে দিয়েছেন এগুলো আমাদের বড় অর্জন। এই অর্জনকে রক্ষার দায়িত্ব যুবলীগের। পাশাপাশি জননেত্রী শেখ হাসিনাকে সকল ষড়যন্ত্র থেকে রাজপথে রক্ষা করতে হবে।

উপস্থিত নেতা কর্মীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, আমাদের নির্ণয় করতে হবে কিভাবে বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে যাব। তিনি বলেন, রাজনীতি মানে অধিকার আদায় করা। কোনো গোষ্ঠী বা গোত্রের অধিকার হরণ হয় বা নিপীড়িত হয় তখনই যুবলীগ প্রতিবাদী কন্ঠ হিসেবে ভূমিকা রাখে, যা যুবলীগের চরিত্র। এই সম্মেলনের মধ্য দিয়ে রাজনীতি, সংস্কৃতির পরিবর্তন আসবে। আজকে যুবলীগ মানবিক যুবলীগে আবর্তিত হয়ে আলোর দিকে ধাবমান।

যুবলীগ ভবিষ্যতে বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দেবে জানিয়ে যুবলীগ চেয়ারম্যান বলেন, আমাদের দক্ষতা বৃদ্ধি করতে হবে। কেননা সামনের দিনে দক্ষতার বিকল্প নাই। রাজপথে আমাদের মেধাবী সৈনিক দরকার, সৃজনশীল প্রতিভার দরকার, দক্ষ কারিগরের দরকার। আমাদের প্রত্যয় হবে শোষণ মুক্ত সমাজ ব্যবস্থা কায়েম। মানুষকে শোষণ, শাসন, নির্যাতন করা যাবে না।





তিনি আরও বলেন, সামনে অনেক প্রতিকূলতা। বঙ্গবন্ধু কন্যার বিরুদ্ধে সকল ষড়যন্ত্র রাজপথে থেকে প্রতিহত করতে হবে। রাস্তায় আন্দোলন সংগ্রামের প্রস্তুতি নিতে হবে। আগামীতে যুব সমাজকে যুব শক্তিতে রূপান্তরিত করতে হবে। কেননা যুব শক্তি মেধা ও দক্ষতা দ্বারা বলিয়ান।

পরশ বলেন, সংগঠনে ভুঁইফোড় অনুপ্রবেশকারীদের রাজত্ব বন্ধ করতে হবে। আশা করি আপনারা ত্যাগী সাংগঠনিকভাবে অভিজ্ঞ ও দক্ষ নেতাকর্মীদের নির্বাচন করে মূল্যায়ন করবেন। যারা দলের দুঃসময়ে সংগ্রাম করেছে, জেল-জুলুম ত্যাগ-তিতিক্ষা অত্যাচার সহ্য করেছে, তাদেরকে আপনারা বিবেচনা করবেন। বিবেচনা করবেন তাদের বিগত দিনের কর্মকাণ্ড ও কার্যকলাপ।

যুবলীগ চেয়ারম্যান বলেন, আপনাদের কাছে অনুরোধ দুর্নীতিগ্রস্ত হবেন না। দুর্নীতি বাংলাদেশকে ভিতর থেকে খেয়ে ফেলেছে। দুর্নীতি দূর করা কঠিন কিন্তু নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব। যুবলীগ দুর্নীতিকে নিয়ন্ত্রণ করতে পারবে। আইন করে দুর্নীতি নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব নয়। সামাজিক আন্দোলন করে দুর্নীতিকে নিয়ন্ত্রণ করতে হবে। দুর্নীতি নিয়ন্ত্রণ করতে জনগণকে যুক্ত করতে হবে।

তিনি বলেন, যুবলীগের প্রয়োজন সুশৃঙ্খল সংগঠন। এ সংগঠনে সবাইকে সুশৃঙ্খল নীতিমালা মেনে চলতে হবে। যারা যে পদপদবী পাবেন তারা কমিটির সদস্যদের খবরা খবর নিতে হবে। সংগঠনের সকল সভা থেকে শুরু করে বর্ধিত সভাগুলো যথা সময়ে সম্পন্ন করতে হবে।

এসময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উত্তর জেলার সভাপতি এম এ সালাম, সাধারণ সম্পাদক শেখ মোহাম্মদ আতাউর রহমান, সংসদ সদস্য মাহফুজুর রহমান, এবিএম ফজলে করিম চৌধুরী, দিদারুল আলম ও খাদিজাতুল আনোয়ার, যুবলীগ চট্টগ্রাম বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নাঈম, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. সাইফুর রহমান সোহাগ, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক জয়দেব নন্দী, উপ প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আদিত্য নন্দী ও কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য নিয়াজ মোর্শেদ এলিটসহ উত্তর জেলা আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, ২০০৩ সালে সর্বশেষ যুবলীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছিল। পরবর্তীতে ২০১৩ সালে কেন্দ্র থেকে এস এম আল মামুনকে সভাপতি ও এস এম রাশেদুল আলম সাধারণ সম্পাদক করে কমিটির অন্যান্যদের পদ-পদবীতে বহাল রেখে সর্বশেষ কমিটি করা হয়েছিল।


আরো পড়ুন:

 



ঠাকুরগাঁওয়ে স্বেচ্ছাসেবক লীগের বিক্ষোভ সমাবেশ

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিরুদ্ধে বিএনপির নেতাদের লাগাতার মিথ্যাচার ও অপপ্রচারের বিরুদ্ধে তীব্র নিন্দা জানিয়ে ও প্রতিবাদ জানিয়ে বিক্ষোভ মিছিল
করেছেন ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগ।

শুক্রবার(২৭ মে) বিকেলে সদর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের আয়োজনে জেলা আওয়ামীলীগ কার্যালয়ের সামনে থেকে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়। বিক্ষোভ মিছিলটি শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে একই স্থানে এসে শেষ হয়।

সদর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি মুজাহিদুর রহমান শুভ'র সভাপতিত্বে পরে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এসময় বক্তব্য দেন, জেলা আ.লীগের উপ-প্রচার সম্পাদক সোহেল রানা, পৌর আ.লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মহির উদ্দিন, জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক স্বপন কুমার ঘোষ, উপ-মহিলা বিষয় সম্পাদক শিউলী আক্তার,সদর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সহ-সভাপতি মাহফুজুর রহমান টিটু, প্রভাষক আল মামুন,রহিম, সাধারণ সম্পাদক আবু ওয়াফু তপু, যুন্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুল আল মামুন, দপ্তর সম্পাদক আবু হাসনাত মশিউর রহমান রুমন প্রমূখ।








এসময় বক্তারা তাদের বক্তব্যে বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নামে বিএনপি নেতারা মিথ্যা অপপ্রচার চালাচ্ছেন। তারা (বিএনপি) কখনো দেশের মানুষের শান্তি দেখতে চায়না। দেশের উন্নয়ন তারা সহ্য করতে পরেনা। শুধু মিথ্যাচার দিয়েই এগিয়ে যেতে চায়। আমাদের নেত্রী শেখ হাসিনার দেওয়া বক্তব্য নিয়ে বিএনপির নেতারা ভুল ব্যাখ্যা দিয়ে বিভ্রান্তি সৃষ্টির পাঁয়তারা করছে। সেই সাথে বিষয়টি ভিন্নখাতে প্রবাহিত করে উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে তথাকথিত প্রধানমন্ত্রীর দেয়া বক্তব্যকে 'হত্যার হুমকি'র বয়ান তৈরি করছে তারা। আমরা এর তীব্র নিন্দা জানাই।

এসময় বিক্ষোভে সদর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের নবগঠিত পূর্ণাঙ্গ কমিটির নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। আলোচনা শেষে নবগঠিত পূর্ণাঙ্গ কমিটির নেতারা জেলা ডাকবাংলো চত্বরে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।


আরো পড়ুন:



 


ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে সোচ্চার থাকতে হবে
-রমেশ চন্দ্র সেন

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও ঠাকুরগাঁও-১ আসনের সংসদ সদস্য সাবেক মন্ত্রী রমেশ চন্দ্র সেন বলেন, বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকার দেশে যে কাজ করছে, তা সারা বিশ্বে রোল মডেল হিসেবে বিবেচিত হচ্ছে। বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু একটি মহল বসে নেই, তারা সরকারের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত। তাই ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে দলের নেতাকর্মী ও জনগণকে সোচ্চার থাকার আহবান জানান তিনি।

মঙ্গলবার বিকেলে ঠাকুরগাঁও পৌর আওয়ামী লীগের নব-নির্বাচিত কমিটির পরিচিতি সভা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।


সংসদ রমেশ চন্দ্র সেন বলেন, যতই ষড়যন্ত্র হোক না কেন, সকল ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করে আমরা এ উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখব। উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখার জন্য আমাদের এ সরকারকে প্রয়োজন। তাই আগামী ২০২৩ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে পুণরায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আমরা পুণরায় প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দেখতে চাই। এজন্য সকলকে ঐকব্যদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে।

তিনি বলেন, বিএনপি যখন ক্ষমতায় ছিল তখন তারা দেশের উন্নয়নের নামে অর্থ লুটপাট করেছে এবং বিদেশে পাচারও করেছে। তারা দেশকে একটি ভঙ্গুর রাষ্ট্রে পরিণত করেছিল। কিন্তু আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর থেকে দেশে ব্যাপক হারে উন্নয়নমূলক কাজ হয়েছে, যা গুনে শেষ করা যাবে না। এসব উন্নয়নের সুফলও জনগণ ভোগ করছে। অতএব আওয়ামী লীগ হচ্ছে জনগণের সরকার, আওয়ামী লীগ আসলেই দেশের চেহেরা পাল্টে যায়।

রমেশ চন্দ্র সেন বলেন, আপনারা নিশ্চয়ই জানেন এই পদ্মা সেতু নিয়ে বিএনপি কি ধরনের ষড়যন্ত্র করেছিল, কিন্তু তারা সফল হয়নি। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আজ স্বপ্নের পদ্মাসেতু হয়ে গেছে। এখন জনগণকে আর কষ্ট করে পদ্মা নদী পারপার হতে হবে না, পদ্মা সেতুর উপর দিয়ে অল্প সময়ের মধ্যে এপার থেকে ঐপার, আর ঐপার থেকে এপারে যাতায়াত করতে পারবে।



সামনে জাতীয় সংসদ নির্বাচন আসছে; এই নির্বাচনে আওয়ামী লীগের নৌকাকে নির্বাচিত করতে হবে। এজন্য আওয়ামী লীগের প্রত্যেক নেতাকর্মীকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার জন্য আহŸান জানান সংসদ সদস্য রমেশ চন্দ্র সেন।


ঠাকুরগাঁও পৌর আওয়ামী লীগের নব-নির্বাচিত সভাপতি ইকরামুল হক একরামের সভাপতিত্বে ও নব-নির্বাচিত পৌর কমিটির সাধারণ সম্পাদক মাসুদুর রহমান বাবুর সঞ্চালনায় পরিচিতি সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন, ঠাকুরগাঁও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুহাম্মদ সাদেক কুরাইশী, সাধারণ সম্পাদক দীপক কুমার রায়।

এছাড়াও বক্তব্য দেন, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মাহবুবুর রহমান খোকন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. আ ফ ম গোলাম ফারুক রুবেল, অ্যাড. মোস্তাক আলম টুলু, সাংগঠনিক সম্পাদক জুলফিকার আলী ভুট্টো, প্রচার সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান রিপন, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক নজরুল ইসলাম স্বপন, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাড. অরুনাংশু দত্ত টিটো, সাধারণ সম্পাদক মোশারুল ইসলাম প্রমুখ।

এরআগে ঠাকুরগাঁও পৌর আওয়ামী লীগের নব-নির্বাচিত কমিটি ও পৌর আওয়ামী লীগের অধিনে গঠিত পৌরসভার ১২টি ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের নব-নির্বাচিত কমিটির নেতৃবৃন্দকে ফুল দিয়ে বরণ করে নেন অতিথিরা।


আরো পড়ুন:




যোগাযোগ ফর্ম

নাম

ইমেল *

বার্তা *

Blogger দ্বারা পরিচালিত.
Javascript DisablePlease Enable Javascript To See All Widget