Latest Post

 আবরার হত্যার প্রধান আসামীকে নির্দোষ দাবী করে  পিতার সংবাদ সম্মেলন

Father's press conference acquitted the main accused in Abrar's murder


বাংলাদেশ প্রকৌশলী বিশ্ববিদ্যালয়ে (বুয়েটে) আলোচিত আবরার হত্যা মামলায় মৃত্যুদন্ড প্রাপ্ত প্রধান আসামী মেহেদী হাসান রাসেলকে নির্দোষ দাবি করে ফরিদপুরের নগরকান্দা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেছেন তার পিতা রুহুল আমিন ।

 

সোমবার (১৪ মার্চ) সকাল ১০ টায় নগরকান্দা প্রেসক্লাব মিলনায়তনে রাসেলের পিতা রুহল আমিন লিখিত বক্তব্যে জানান, “ আমার ছেলে রাসেল সম্পুন্ন নির্দোষ, আবরার হত্যার সাথে সে বিন্দুমাত্র জড়িত নেই । আমার ছেলে বঙ্গবন্ধুর আদর্শে রাজনীতি করে, সে বুয়েট ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ছিল এই কারণে তাকে এই মামলায় জড়ানো হয়েছে । আমার ছেলে ঘটনাস্থলে ছিলো না। 


তিনি আরো জানান, আমি একজন পিতা হিসেবে আবরারের হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি চাই । তবে আবরার হত্যার সাথে যারা প্রকৃতভাবে জড়িত তাদের শাস্তি চাই । আমার ছেলের মত কোন  নিরপরাধ ব্যক্তি যেন এই মামলায় শাস্তি না পায় আমি সেই ব্যাপারে মহামান্য রাষ্ট্রপতি ,মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সহায়তা কামনা ও হস্তক্ষেপ আশা করছি। 


সংবাদ সম্মেলনে ফরিদপুরের নগরকান্দায় কর্মরত বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ার সাংবাদিক বৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।


উল্লেখ্য , বুয়েটের আলোচিত আবরার হত্যার মৃত্যুদন্ডপ্রাপ্ত প্রধান আসামী মেহেদী হাসান রাসেলের গ্রামের বাড়ি ফরিদপুরে সালথা উপজেলার রাংগারদিয়া গ্রামে। তার বাবা রুহুল আমিন বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর সাবেক ওয়ারেন্ট অফিসার।

 বাস পোড়ানোর ঘটনায় পুলিশের  ৩ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন 


Police formed a three-member investigation committee into the burning of the bus


ফরিদপুরে রহস্যজনক অগ্নিকান্ডে ২ হাজার কোটি টাকার অর্থপাচার মামলায় জব্দকৃত ১২টি বাস পোড়ানোর ঘটনা তদন্তে পুলিশের পক্ষ থেকে ৩ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে এবং  ৫ কর্ম দিবসের মধ্যে তাদের রির্পোট দিতে বলা হয়েছে। এছাড়া এ ঘটনায় পুলিশ বাদি হয়ে একটি মামলা দায়ের করেছে।


আদালতের নির্দেশে ঢাকার সিআইডি এসব বাস জব্দ করে ফরিদপুরের পুলিশের হেফাজতে রাখা ছিল।

উল্লেখ্য, গত শনিবার রাত সোয়া ১টার দিকে শহরের গোয়ালচামটে নতুন বাস টার্মিনালের পাশে রেখে দেওয়া এ বাসগুলোতে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। সাউথ লাইন পরিবহনের ব্যানারে থাকা বাসগুলোর মালিক ২ হাজার টাকা অর্থপাচার মামলায় গ্রেফতার শহর আওয়ামী লীগের বহিস্কৃত সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদ হোসেন বরকতের মালিকানাধীন। 

আরো পড়ুন: সন্তানের সামনে গৃহবধূ গণধর্ষণের ঘটনায় আদালতে মামলা

ফরিদপুরের কোতয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) এম এ জলিল জানান, এ ঘটনায় কোতয়ালী থানার ইন্সপেক্টর মো. গাফফার বাদি হয়ে একটি মামলা দায়ের করেছেন। মামলা নং- ৪০।


ফরিদপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুমন রঞ্জন সরকার জানান, ফরিদপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এমদাদ হোসেনকে প্রধান করে এ ঘটনা তদন্তে তিন সদস্যবিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি করা হয়েছে। পাঁচ কর্মদিবসের মধ্যে তাদের রিপোর্ট দিতে বলা হয়েছে।

আরো পড়ুন: তেলের ওপর নিষেধাজ্ঞা দিলে গ্যাস বন্ধের হুমকি রাশিয়ার

জানা গেছে, চারটি বিষয়কে সামনে রেখে পুলিশের তদন্ত চলছে। ব্যাংক ঋণের টাকায় কেনা বাসগুলো পুড়িয়ে ঋণ থেকে বাচঁতে কোন চেষ্টা চলছে কিনা কিংবা বীমার টাকা পেতে এ কাজ করা হয়েছে কিনা সেটি দেখা হবে। এছাড়া গাড়িগুলো পুড়িয়ে অর্থপাচার মামলা হতে বাঁচতে কিংবা ফায়দা পেতে আগুন দেয়া হয়েছে কিনা কিংবা আসামীদের দ্বারা ক্ষতিগ্রস্থ কোন পক্ষ নাশকতার জন্য এ কাজ করেছে কিনা সেটিও দেখা হবে তদন্তে। তবে এ ঘটনায় জড়িত কাউকে এখনো  সনাক্ত করা যায়নি। 


প্রসঙ্গত, ২০২০ সালের ১৬ মে রাতে ফরিদপুর জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি সুবল চন্দ্র সাহার বাড়িতে হামলা হয়। এ ঘটনায় দায়েরকৃত মামলায় ওই বছরের ৭ জুন রাতে পুলিশের বিশেষ অভিযানে গ্রেপ্তার হন বরকত ও রুবেল সহ তাদের ৯ সহযোগী। এরপর ঢাকার সিআইডি তাদের বিরুদ্ধে দুর্নীতি, সন্ত্রাস ও অর্থপাচারের অভিযোগে ২ হাজার কোটি টাকা পাচারের মামলা করে কাফরুল থানায়। আদালতের নির্দেশে বাসগুলো জব্দ করে সেগুলো এখানে রাখা ছিলো।  আলোচিত অর্থপাচারের এ মামলায় বরকত ও রুবেল এখন কারাগারে। এই মামলায় গত ৫ মার্চ শুক্রবার রাতে ঢাকা হতে গ্রেফতার হন সাবেক এলজিআরডি মন্ত্রী ও ফরিদপুর-৩ আসনের সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেনের ভাই খন্দকার মোহতেশাম হোসেন বাবর।



আরো পড়ুন:


 বিএমএসএফ'র ৬১ সদস্যের কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটি গঠন 

Formation of 71-member Central Executive Committee of BMSF


দীর্ঘ বিরোধ ও অচলাবস্থার নিরসন ঘটিয়ে বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম (বিএমএসএফ) পুনর্গঠিত হয়েছে। শহিদুল ইসলাম পাইলট (চ্যানেলআই ও সমকাল) কে সভাপতি, সাঈদুর রহমান রিমন (বাংলাদেশ প্রতিদিন) কে সিনিয়র সহসভাপতি ও জসিম মাহমুদ (দৈনিক স্টারলাইন) কে সাধারণ সম্পাদক করে ৬১ সদস্যের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটি গঠিত হয়েছে।


এ ছাড়াও পুনর্গঠিত কমিটিতে সোহাগ আরেফিন (দৈনিক অন্যদিগন্ত) কে যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও শারমিন সুলতানা মিতু (দৈনিক সরেজমিন বার্তা) কে অর্থ সম্পাদকের দায়িত্ব দেয়া হয়।


গঠনতন্ত্র মোতাবেক প্রত্যেক শাখা কমিটির সভাপতি/ সাধারণ সম্পাদকগণ পদাধিকার বলে কেন্দ্রীয় সদস্য হিসেবে সংযুক্ত থাকবেন।


সাংবাদিকদের অধিকার আদায়ের লক্ষ্যে ২০১৩ সালে গঠিত বিএমএসএফ কে অতিসম্প্রতি একক ব্যক্তির পৈতৃক সম্পদের ট্রাস্টে পরিণত করার অপচেষ্টার অভিযোগে চরম বিরোধ ও কোন্দলের সূত্রপাত ঘটে। অবশেষে গতকাল (১৪ মার্চ) সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা সদস্যদের সমন্বিত বৈঠক শেষে এ কমিটি পুনর্গঠনের মধ্য দিয়ে সব বিরোধের সুরাহা করা হয়। গতকাল সকালে বিএমএসএফ এর মতিঝিলস্থ কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত বৈঠকে সংগঠনের সর্বোচ্চ পরিচালনা পর্ষদ ও নীতি নির্ধারণী উপদেষ্টা কমিটিও গঠন করা হয়েছে। গঠনতন্ত্রের আলোকে সারাদেশে ভূয়া ও অপসাংবাদিকতা মুক্ত শাখা কমিটি পূণর্গঠনের ব্যাপারে জরুরি উদ্যোগ নেয়া হবে বলেও জানানো হয়।

আরো পড়ুন: সন্তানের সামনে গৃহবধূ গণধর্ষণের ঘটনায় আদালতে মামলা

সহসভাপতির দায়িত্ব পেয়েছেনঃ সাজ্জাদ হোসেন চিশতি (রাইজিং বিডি), কাজী মিরাজ (দৈনিক পরিবর্তন), ফজলুল কাদের চৌধুরী (দৈনিক রুপালী সৈকত), আকরাম হোসেন (আনন্দ টিভি),হাসান আল মামুন (দৈনিক সরেজমিন বার্তা), জসিমউদ্দিন চাষী (দৈনিক সমাজকন্ঠ), আলমগীর হোসেন (দৈনিক মুক্তখবর), আব্দুল্লাহ আল মামুন (দৈনিক প্রাণের বাংলাদেশ)।


সহ সম্পাদক:  আবু কায়ছার মাখন (আনন্দ টিভি), রিয়াজুল ইসলাম বাচ্চু (দৈনিক আজকের পরিবর্তন), মোবারক বিশ্বাস (এটিএন বাংলা), বদরুল আমীন (আলোকিত সকাল),কামরুল হক চৌধুরী (বাংলাদেশ অবজারভার), আকবর হোসেন সোহাগ (বাংলাদেশ প্রতিদিন), প্রভাষক পলাশ (দৈনিক সমুদ্রকন্ঠ), মো: আনোয়ারউল্লাহ (সংবাদ প্রতিদিন)।


সাংগঠনিক সম্পাদকঃ আমিনুল ইসলাম আহাদ (মেঘনা টিভি), সোহেল সরদার (স্বাধীন বাংলা), এম এ আকরাম (নয়াদিগন্ত), ইঞ্জিনীয়ার কামাল হোসেন (দৈনিক মুক্ততথ্য) মীর আলাউদ্দিন (দেশপত্র), জুয়েল খন্দকার (সংবাদ টিভি), মং সানু (ভোরের কাগজ), কবীর নেওয়াজ (মানুষের কল্যাণে প্রতিদিন)।


সহ সাংগঠনিক সম্পাদকঃ আজমীর তালুকদার (একুশে টেলিভিশন), খালেকুজ্জামান পান্নু (প্রতিদিনের সংবাদ), আবদুর রাহিম (স্বদেশ প্রতিদিন), সোহেল মিয়া (একুশে বাণী), তুষার হাওলাদার, তোফায়েল মিলন (দৈনিক গণকন্ঠ), সাজেদুর রহমান সাজু (মানবজমিন), মিজানুর রহমান (ফুলপুর)।


অর্থ সম্পাদক শারমিন সুলতানা মিতু (দৈনিক সরেজমিন বার্তা), সহ অর্থ সম্পাদক মারুফা জাহান মোনালিসা (আজকের খবর), দপ্তর সম্পাদক আনিসুর রহমান (এসএ টিভি), সহ দপ্তর সম্পাদক খাইরুল ইসলাম লাভলু (খবর বাংলাদেশ), প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ইমতিয়াজ উদ্দিন (দৈনিক ভোরের পাতা), আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক কাজী ফায়েজ আহমেদ (দৈনিক মুক্তমত), ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক মেরাজ উদ্দিন (ইন্ডিপেন্ডেন্ট টিভি), শিক্ষা, গবেষণা ও প্রশিক্ষণ সম্পাদক সেহ্লী পারভীন (দেশপত্র), তথ্য, প্রযুক্তি/আইটি সম্পাদক মেহেদী হাসান রিয়াদ (দৈনিক সরেজমিন বার্তা), সহ তথ্য, প্রযুক্তি/আইটি সম্পাদক আজিজুল ইসলাম যুবরাজ (সংবাদ টিভি), নারী ও শিশু বিষয়ক সম্পাদক তাসলিমা বেগম (দৈনিক মুক্তখবর), মানবাধিকার ও সমাজ কল্যাণ সম্পাদক লায়ন আলমগীর হোসেন (দৈনিক গণজাগরণ)।

সভায় বিএমএসএফ এর প্রতিষ্ঠাতা সদস্য এবং সাবেক নির্বাহী পরিষদ নেতা আহমেদ আবু জাফর, আবুল কালাম আজাদ, আবুল হোসেন তালুকদার এর সমন্বয়ে সর্বোচ্চ নীতি নির্ধারনী ‘উপদেষ্টা পরিষদ’ গঠন করা হয়।

আরো পড়ুন: তেলের ওপর নিষেধাজ্ঞা দিলে গ্যাস বন্ধের হুমকি রাশিয়ার

একইসঙ্গে সাঈদুর রহমান রিমন (বাংলাদেশ প্রতিদিন) কে সভাপতি, আফজাল হোসেন (এনটিভি) কে সহসভাপতি ও মো: আজাহারুল হক (যুগান্তর) কে সাধারন সম্পাদক করে ৯ সদস্যের সর্বোচ্চ পরিচালনা পরিষদও গঠিত হয়েছে। পরিচালনা পর্ষদের সদস্যরা হচ্ছেন, এম রায়হান (চ্যানেল আই ও জনকন্ঠ), সজীব আকবর (দৈনিক খবরের আলো), মোহাম্মদ আলী সুমন (আইবিএন টিভি), মাসুম তালুকদার (স্বাধীন বাংলা), কামাল উদ্দিন (বৈশাখী টিভি), মজিবুল শেখ (দৈনিক কুষ্টিয়া দর্পণ)।


সর্বসম্মতিক্রমে সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন, গৌরাঙ্গ দেবনাথ অপু (দৈনিক বাংলা ৭১), এস.এম রাশেদ (দৈনিক রুপালী দেশ), এম.এইচ মুন্না (দৈনিক গণজাগরণ), তরিকুল ইসলাম শামীম (একাত্তর টিভি), সুমন সরদার (বাংলাদেশের আলো), নাসির উদ্দিন লিটন (নেক্সাস টিভি), আব্দুল ওয়াদুদ (দৈনিক ঢাকা রিপোর্ট), রবিউল ইসলাম (যুগান্তর), জান্নাতুল ফেরদৌস (দৈনিক মুক্তমত), মোহাম্মদ সাহাদাত হোসেন (নয়াদিগন্ত ও দৈনিক ফেনীর সময়), পারভেজ মুন্না (দৈনিক ভোরের পাতা), প্রভাষক গিয়াস উদ্দিন (দৈনিক তৃতীয় মাত্রা), কাজী আয়েশা ফারজানা (কালেরকন্ঠ), আব্দুল্লাহ আল মামুন (প্রতিদিনের সংবাদ), মামুনুর রশীদ নোমানী (দৈনিক শাহনামা), কে এম শামসুদ্দোহা (সকালের সংবাদ), আতোয়ার রহমান মনির (একাত্তর টিভি ও দৈনিক সমকাল)।


আরো পড়ুন:

 গমের জায়গা নিচ্ছে ভুট্টা ও সরিষা ! 

Wheat is being replaced by corn and mustard!


গমের সবচেয়ে বেশি আবাদ বা উৎপাদনের কথা উঠলে নাম আসে ঠাকুরগাঁও জেলার। কিন্তু কয়েক মৌসুম ধরে এই জেলার কৃষকেরা যে গম চাষে আগ্রহ হারাচ্ছেন, তা বোঝা যাচ্ছে আবাদি জমি ও উৎপাদনের পরিমাণ পর্যালোচনা করে। পাঁচ বছর ধরে দুটিই নিম্নমুখী।


জেলায় গত ৫ বছরে গমের আবাদ কমেছে প্রায় ১৬ হাজার হেক্টর জমিতে। বিপরীতে কৃষকেরা ঝুঁকেছেন ভুট্টা ও সরিষা চাষে। জেলায় ৫ বছরে ভুট্টা চাষ বেড়েছে ১৩ হাজার ৬৮০ হেক্টর জমিতে।


সে তুলনায় রাণীশংকৈল উপজেলায় গমের চেয়ে বেড়েছে ভুট্টা ও সরিষার চাষ। এ বছর ভুট্টা চাষ বেড়েছে ১০০ হেক্টর ও সরিষা ১৭০ হেক্টর বেশি জমিতে চাষ হয়েছে।


রাণীশংকৈল উপজেলাজুড়ে এক সময় ব্যাপক গমের আবাদ হতো। মাঠ জুড়ে থাকত ফসলটির বিস্তার। সেই গমের চাষের স্থান দখল করেছে ভুট্টা ও সরিষা।

আরো পড়ুন: সন্তানের সামনে গৃহবধূ গণধর্ষণের ঘটনায় আদালতে মামলা

গমের চেয়ে কম পরিচর্যা ও কম সেচ খরচে ভালো ফলন হয় এবং দামও ভালো পাওয়া যায় বলে ভুট্টা চাষে কৃষকেরা আগ্রহী হয়ে উঠছেন। কয়েক বছর ধরে ভুট্টায় বিঘাপ্রতি খরচের সমান মুনাফা হচ্ছে। এ কারণে ভুট্টার আবাদে ঝুঁকছেন এলাকার কৃষকেরা। এর ফলে উপজেলায় ধারাবাহিকভাবে ভুট্টার উৎপাদন বাড়ছে।


কৃষি কর্মকর্তারা বলছেন, উৎপাদন কম, শ্রমিক সংকট, ভালো বীজের অভাব ও বৈরী আবহাওয়ার কারণে গম চাষে উৎসাহ হারিয়ে ফেলছেন কৃষকেরা। বিপরীতে ভুট্টা চাষে সেচের খরচ কম ও উৎপাদন বেশি।


কৃষকেরা বলছেন, গমের চেয়ে ভুট্টার ফলন ভালো পাওয়া যায়। এ ছাড়া আবাদে ঝামেলা একটু কম। বিক্রি করা যায় খুব সহজে বলেই তাঁরা ভুট্টা চাষে ঝুঁকছেন। অন্যদিকে সরিষা স্বল্পকালীন সময়ের ফসল, তা তুলে আবার বোরো ধান রোপণ করা যায়। এ কারণেই মানুষ সরিষা চাষেও ঝুঁকছেন।


উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায়, গত বছরে উপজেলায় গমের আবাদ হয়েছে ৫ হাজার ১৬০ হেক্টর জমিতে, ভুট্টা ৫ হাজার হেক্টর এবং সরিষা ৪ হাজার ৯৫০ হেক্টর জমিতে চাষ হয়েছে।

আরো পড়ুন: তেলের ওপর নিষেধাজ্ঞা দিলে গ্যাস বন্ধের হুমকি রাশিয়ার

চলতি বছর উপজেলা গমের চাষ কমে গিয়ে আবাদ হয়েছে ৫ হাজার হেক্টর জমিতে। অপরদিকে ভুট্টার চাষ হয়েছে ৫ হাজার ১০০ হেক্টর জমিতে আর সরিষা বেড়ে হয়েছে ৫ হাজার ১২০ হেক্টর জমি।


হোসেনগাঁও ইউনিয়নের ক্ষুদ্র বাশঁবাড়ী গ্রামের ভুট্টা চাষি কবির হোসেন জানান, যে জমিতে বোরো ধান চাষাবাদ করা কঠিন হয়ে পড়ে, সে জমিতে এখন ভুট্টা লাগিয়ে ঝামেলাবিহীন ফসল হিসেবে কৃষকেরা লাভবান হচ্ছেন। এ ছাড়াও যে জমিতে বোরো ধান লাগানোর জন্য বীজতলা প্রস্তুত করে এরপর ধান রোপণ করা হয় সেসব জমিতে স্বল্পকালীন ফসল হিসেবে সরিষা লাগিয়েও ভালো টাকা লাভ করছেন কৃষকেরা। সরিষা খেত থেকে তুলে আবার ধানও সময় মতো রোপণ করা যায়।


বাশঁবাড়ী গ্রামের আরেক কৃষক শামীম জানান, সরিষা মাত্র ৬০ থেকে ৬৫ দিনের মধ্যে তুলা যায়। এক বিঘা ফসল ফলাতে সব মিলে সর্বোচ্চ হাজার তিনেক টাকা খরচ হয়। আর বিঘা প্রতি ৫ থেকে ৬ মণ সরিষা উৎপাদন হয়। যা বাজারে ৭ থেকে ৮ হাজার টাকা বিক্রয় করা যায়। এ ছাড়া সময়মতো বোরো ধানও রোপণ করা যায়।


উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সঞ্জয় দেবনাথ বলেন, এই উপজেলায় মোটামুটি সব ফসলেই কম বেশি আবাদ হচ্ছে। তবে লাভজনক ফসলের দিকেই এই অঞ্চলের কৃষকেরা বেশি আগ্রহ দেখাচ্ছেন।


আরো পড়ুন:

বাণিজ্যিকভাবে পেঁয়াজ বীজ উৎপাদিত

Commercially produced onion seeds


ঠাকুরগাঁওয়ের বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার চাড়োল ইউনিয়নে বাণিজ্যিকভাবে পেঁয়াজবীজ উৎপাদিত হচ্ছে। বীজের দাম বেশি হওয়ায় কৃষকদের মাঝে উৎপাদনে আগ্রহ বাড়ছে।


উপজেলার চাড়োল, পাড়িয়া, ও ধনতলা ইউনিয়নের সাবাজপুর, রায়মহল, পাতিলভাষা, মরিচপাড়া, খোচাবাড়ী, বাঙ্গাটুলি গ্রামে পেঁয়াজ বীজ উৎপাদন লক্ষ্যে করা গেছে। তাই এসব গ্রামের চাষিরা ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন।


জমিতে পেঁয়াজবীজ বপনের সময় নভেম্বর মাসে। বীজ পরিপক্ব হতে সময় লাগে চার মাস ১০ দিন। পেঁয়াজ ফুলে পরাগায়ন না হলে পরিপক্বতা আসে না। আর এসব ফুলে পরাগায়নের প্রধান মাধ্যম হলো মৌমাছি। পোকার আক্রমণ থেকে ফসল বাঁচাতে কৃষকেরা খেতে কীটনাশক ছিটান। কিন্তু সেই কীটনাশকে মারা পড়ছে উপকারী পোকা ও মৌমাছি। এ কারণে পেঁয়াজবীজের খেতে দিন দিন মৌমাছির আনাগোনা কমে যাচ্ছে। তাই হাতের স্পর্শে কৃত্রিমভাবে পরাগায়নের চেষ্টা করছেন তাঁরা।

আরো পড়ুন: সন্তানের সামনে গৃহবধূ গণধর্ষণের ঘটনায় আদালতে মামলা

বেসরকারি একটি কোম্পানির সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয়ে চলতি মৌসুমে চাড়োল গ্রামের আতাউর রহমান ১ একর জমিতে পেঁয়াজবীজ চাষ করেছেন। তিনি বলেন, ‘পেঁয়াজবীজ দেয় কোম্পানি থেকে, উৎপাদন করতে হয় নিজ খরচে। পুরো জমিতে পেঁয়াজবীজ উৎপাদন করতে ব্যয় হয়েছে দেড় লাখ টাকা। উৎপাদন শেষে তারাই কিনবে ১ হাজার ২০০ টাকা কেজি দরে।’ প্রাকৃতিক দুর্যোগ না হলে ৬০০ থেকে ৭০০ কেজি পেঁয়াজবীজ হবে বলে আশা করছেন তিনি, এর বাজার মূল্য হবে প্রায় ৭ লাখ টাকা।


পাশের খেতে হায়দার আলী চার বিঘা জমিতে পেঁয়াজবীজ চাষ করেছেন। তিনি জানান, বাজারে দর থাকায় তাঁর কাছে পেঁয়াজবীজ সোনা চাষের মতো। গেল বছর প্রতি বিঘা জমিতে দেড় লাখ টাকা করে লাভ করেছেন। এ ছাড়া খেতের পেঁয়াজ উপহার হিসেবে বিলিয়েছেন পাড়া-প্রতিবেশী ও আত্মীয়দের মাঝে। চলতি বছর খেতের দেড়গুণ ফলন ও লাভের আশা করছেন তিনি।


আরো পড়ুন: তেলের ওপর নিষেধাজ্ঞা দিলে গ্যাস বন্ধের হুমকি রাশিয়ার

উপজেলা কৃষি কার্যালয় জানায়, চলতি বছর উপজেলায় বেসরকারি বীজ উৎপাদনকারী কোম্পানিগুলোর আওতায় পেঁয়াজের বীজ উৎপাদন হয়েছে ২৬ হেক্টর জমিতে। গত বছর কৃষি কার্যালয়ের নিজস্ব প্রদর্শনী থাকলেও এবার নেই।


উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সুবোধ চন্দ্র রায় বলেন, ‘অফিস থেকে চাষিদের পরামর্শ দিয়ে সহযোগিতা করা হচ্ছে।’


আরো পড়ুন:

 ফেনীতে মন্দিরের নিরাপত্তায় সিসি ক্যামেরা প্রদান

Provision of CCTV cameras for security of temples in Feni


ফেনীতে মন্দির নিরাপত্তায় জেলা ও উপজেলা পযার্য়ের ১২টি মন্দিরের জন্য সিসি ক্যামেরা প্রদান করা হয়েছে। ফেনী জেলা প্রশাসকের সভাকক্ষে মন্দির কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের হাতে এসব ক্যামরা ক্রয়ের বরাদ্দপত্র তুলে দেয়া হয়।


জানা গেছে ফেনী জেলা প্রশাসকের সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত সভায় জেলার ৬ উপজেলায় ২টি করে মোট ১২টি মন্দির কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের হাতে সিসি ক্যামেরা ক্রয়ের বরাদ্দপত্র তুলে দেন ফেনীর জেলা প্রশাসক আবু সেলিম মাহমুদ উল হাসান।

আরো পড়ুন: সন্তানের সামনে গৃহবধূ গণধর্ষণের ঘটনায় আদালতে মামলা

এ সময় উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মো: গোলাম জাকারিয়া, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো: মাসুদুর রহমান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বদরুল আলম মোল্লা, ফেনী সদর উপজেলা চেয়ারম্যান শুসেন চন্দ্র শীল, জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা মুুহাম্মদ রুহুল আমিন, সদর উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মো: আফতাবুল ইসলামসহ অন্যান্য কর্মকর্তাগণ।


আরো পড়ুন:


সিমেন্টের গোডাউনে মিললো  ৯১২ লিটার ভোজ্যতেল! 

912 liters of edible oil found in the cement godown!


ফেনীর সোনাগাজীতে একটি সিমেন্টের গোডাউনে ৯১২ লিটার ভোজ্যতেল মজুত করা অবস্থায় পেয়েছে উপজেলা প্রশাসন। এ ঘটনায় মেসার্স আজিজ ট্রেডার্স নামের ওই প্রতিষ্ঠানকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।


 সোনাগাজী উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট লিখন ভৌমিকের নেতৃত্বে রোববার ১৩ মার্চ উপজেলার আমিরাবাদ ইউনিয়নের মানু মিয়ার বাজার এলাকায় এ অভিযান চালান।


নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট লিখন ভৌমিক জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পেরে আমিরাবাদ ইউনিয়নের মানু মিয়ার বাজার এলাকায় মেসার্স আজিজ ট্রেডার্সের সিমেন্টের গোডাউনে অভিযান পরিচালনা করা হয়।

আরো পড়ুন: সন্তানের সামনে গৃহবধূ গণধর্ষণের ঘটনায় আদালতে মামলা

 এসময় ওই গোডাউনে ৫৭টি কার্টনে ৯১২ লিটার ফ্যামিলি ব্র্যান্ডের ভেজিটেবল অয়েল ফর্টিফাইড পামঅয়েল পাওয়া যায়। বাজারে কৃত্রিম তেলের সংকট তৈরি করে তেল মজুতের দায়ে প্রতিষ্ঠানটির মালিক আজিজুল হককে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করে তা আদায় করা হয়।


সেইসঙ্গে আগামী তিনদিনের মধ্যে মজুত করা তেল খুচরা বাজারে সরবরাহ করতে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানকে তদারকির দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে বলেও জানান নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট।


আরো পড়ুন:


যোগাযোগ ফর্ম

নাম

ইমেল *

বার্তা *

Blogger দ্বারা পরিচালিত.
Javascript DisablePlease Enable Javascript To See All Widget