Latest Post

 


রাজশাহীতে নির্বাচনী প্রচারণাকালে প্রার্থীকে দলবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগ


রাজশাহী জেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রচারণা চালাতে গিয়ে এক নারী সদস্য প্রার্থী দলবদ্ধ ধর্ষণের শিকার হয়েছেন অভিযোগ করে থানায় মামলা করেছেন। 

অভিযোগের প্রাথমিক সত্যতা পেয়ে মামলার পাঁচ আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তাঁদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। হাসপাতাল থেকে ফিরে নির্বাচনী প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন ওই প্রার্থী। আগামী ১৭ অক্টোবর নির্বাচনের ভোট গ্রহণ হবে।

এক স্বজনকে সঙ্গে নিয়ে বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোট চাচ্ছেন ওই নারী সদস্য প্রার্থী। তিনি প্রথম আলোকে বলেন, ধর্ষণের ঘটনায় অনেকটা ভেঙে পড়েছেন তিনি। 

তবে প্রচারণা চালাতে গিয়ে যেহেতু নির্যাতনের শিকার হয়েছেন, তাই এটাকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিয়ে মাঠেই আছেন। ভোটারদের কাছ থেকে তিনি সাড়া পাচ্ছেন বলে দাবি করলেন। দ্রুত সময়ের মধ্যে আসামিদের শনাক্ত করে গ্রেপ্তার করায় পুলিশের প্রতি সন্তোষ প্রকাশ করেন তিনি।

এ ঘটনায় গ্রেপ্তার পাঁচ আসামি হলেন বাগমারার মাহাবুর রহমান (২৮), আকবর হোসেন (৩৫), সোহেল রানা (২৪), দুলাল হোসেন (২৫) ও ফজলুর রহমান (৪৮)।

মামলার এজাহারের বরাত দিয়ে বাগমারা থানার পুলিশ জানিয়েছে, আসন্ন জেলা পরিষদ নির্বাচনের প্রচারণা চালাতে গিয়ে এক নারী সদস্য প্রার্থী বাগমারা উপজেলায় যান। প্রচারণা শেষ হতে রাত হয়ে যায়। বাড়ি ফেরার পথে পাঁচ ব্যক্তি তাঁর গতি রোধ করেন। 

এ সময় তাঁরা তাঁকে তুলে নিয়ে অস্ত্রের মুখে দলবদ্ধ ধর্ষণ করেন। এতে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন। এরপর তিনি চিকিৎসা নেন। চিকিৎসা শেষে গত বৃহস্পতিবার থানায় তিনজনের নাম উল্লেখ করে এবং অজ্ঞাত আরও দুজনকে আসামি করে মামলা করেন। 

এরপর পুলিশ তদন্ত করে অভিযোগের সত্যতা পাওয়ায় আসামিদের গ্রেপ্তারে তৎপরতা শুরু করে। পরদিন রাতে পাঁচ আসামিকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। তাঁদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

হাটগাঙ্গোপাড়া পুলিশ তদন্তকেন্দ্রের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা পরিদর্শক আফজাল হোসেন প্রথম আলোকে বলেন, এজাহারে ঠিকানা ও বাবার নাম ভুল থাকায় আসামিদের গ্রেপ্তার করতে তথ্যপ্রযুক্তির সহায়তা নেওয়া হয়েছে। গ্রেপ্তার ব্যক্তিরা প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছেন।


আরো পড়ুন:


  1. নিয়ন্ত্রণহীন ভোজ্য তেলের বাজার
  2. Afran Nisho: ভারতীয় ওয়েব সিরিজে আফরান নিশো
  3. জয়নাল হত্যা মামলার সব আসামি খালাস; পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থার নির্দেশ
  4. ফেনীর দাগনভূঁঞায় মোটরসাইকেল চোরাই চক্রের ৩ সদস্য গ্রেফতার 
  5. ফেনীর ফুলগাজীতে দুই মহিলা ছিনতাইকারী গ্রেফতার
  6. বালিয়াডাঙ্গীতে এক পরিবারের চার সন্তানই প্রতিবন্ধী
  7. পুতিনের বেপরোয়া পদক্ষেপ ইউরোপকে সরাসরি হুমকি দিচ্ছে 
  8. Russia Ukrain: বাংলাদেশি জাহাজে হামলার জন্য ইউক্রেনকে দুষছে রাশিয়া 
  9. সাড়ে ১২ কোটি মানুষ টিকার আওতায়
  10. ইউক্রেনে নাজুক অবস্থায় পড়ে গেছি: প্রতিমন্ত্রী


 


ইবি হিসাববিজ্ঞান ও তথ্য পদ্ধতি বিভাগের পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত 


ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে নানা আয়োজনে একাউন্টিং বিভাগের পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার (১৭ সেপ্টেম্বর) সকালে হিসাব বিজ্ঞান ও তথ্য পদ্ধতি বিভাগের প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রীদের সংগঠন “একাউন্টিং অ্যালামনাই এসোসিয়েশন, ইসলামিক ইউনিভার্সিটি কুষ্টিয়া” এর উদ্যোগে টিএসসিসির বীরশ্রেষ্ঠ হামিদুর রহমান মিলনায়তনে প্রথম পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত হয়। 

হিসাব বিজ্ঞান ও তথ্য পদ্ধতি বিভাগের একাউন্টিং অ্যালামনাই এসোসিয়েশন, ইসলামিক ইউনিভার্সিটি কুষ্টিয়া এর আহবায়ক অধ্যক্ষ মোঃ শাহজাহান আলম সাজু এর সভাপতিত্বে পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. শেখ আবদুস সালাম। 

বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন প্রো-ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ মাহবুবুর রহমান ও ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. মোঃ সাইফুল ইসলাম। অনুষ্ঠানের শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন হিসাব বিজ্ঞান ও তথ্য পদ্ধতি বিভাগের সভাপতি প্রফেসর ড. মোঃ জাকির হোসেন। 

এছাড়া বক্তব্য রাখেন পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানের সমন্বয়ক তাওহিদ হাসান জুবেরী, সাধারন সম্পাদক এ্যাডভোকেট শাহ মঞ্জুরুল হক, বিশিষ্ট অ্যালামনাই মোঃ মহসিন। 

সভায় বক্তারা বলেন, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় বিভিন্ন চড়াই ও উৎরাই পেরিয়ে আজকের এই অবস্থানে এসেছে। যেখানে বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যালামনাই এর ভুমিকা অপরিসীম। এই বিশ্ববিদ্যালয়ে সার্বিক উন্নয়নে ভবিষ্যৎতে অ্যালামনাই কাজ করে যাবে বলে বক্তারা আশাবাদ ব্যক্ত করেন। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্ন বাস্তবায়নের জন্য সকলকে নিজ নিজ অবস্থান থেকে কাজ করতে হবে তাহলেই জাতির পিতার সোনার বাংলা গড়ার স্বপ্ন সার্থক হবে বলে বক্তারা বলেন। 

অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন একাউন্টিং অ্যালামনাই এসোসিয়েশনের সদস্য আলী আক্তার রিজভি ও উম্মে হাবিবা হ্যাপী।


আরো পড়ুন:


 


৯ পণ্যের দাম বেঁধে দেয়ার সিদ্ধান্তে কৃষিমন্ত্রীর দ্বিমত


মার্কেটে সাপ্লাই অ্যান্ড ডিমান্ড- এটা হলো ইকনোমিকসের বেসিক থিউরি। সেনাবাহিনী দিয়ে মিগ ফিট করে কিছু করতে পারবে না।’ট্যারিফ কমিশনের মাধ্যমে চাল, ডালসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় ৯টি পণ্যের দাম বেঁধে দিতে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের নেয়া সিদ্ধান্তে দ্বিমত রয়েছে কৃষিমন্ত্রী মো. আব্দুর রাজ্জাকের। তিনি বলছেন, তার মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে আলোচনা না করেই এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

চাল, আটা, ময়দা, তেল, চিনি, মসুর ডাল, ডিম, সিমেন্ট ও রড– এই ৯টি অত্যাবশ্যকীয় পণ্যের দাম নির্ধারণ করতে ট্যারিফ কমিশনকে দায়িত্ব দিয়েছে সরকার। আগামী ১৫ দিনের মধ্যে এসব পণ্যের যৌক্তিক দাম কী হওয়া উচিত তা ঠিক করতে বলা হয়েছে। বাজারে এই ঘোষিত দাম মানা না হলে কঠোর আইনি পদক্ষেপ নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি।

বাজারে পণ্যের সরবরাহ, মজুত ও আমদানি প্রক্রিয়ার অগ্রগতি বিষয়ে মঙ্গলবার সকালে সংশ্লিষ্টদের নিয়ে রুদ্ধদ্বার বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

দুপুরে এ বিষয়ে কৃষিমন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাকের প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘এই প্রশ্নের উত্তর আমি দিতে পারব না। ট্যারিফ কমিশন ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয় বলুক।’

কৃষিপণ্য তো কৃষি মন্ত্রণালয়ের অধীনে, তাই মন্ত্রী হিসেবে কিছু বলবেন কিনা- এমন প্রশ্নের জবাবে কিছুটা বিরক্তির সুরে আব্দুর রাজ্জাক বলেন, জানতে চাইলে মুখে বিরক্তি নিয়ে কৃষিমন্ত্রী বলেন, ‘তা হলে কী হবে? এগুলোর দাম...ই করে দিয়ে, এগুলো খুব একটা কার্যকর হয় না। মার্কেটে সাপ্লাই অ্যান্ড ডিমান্ড- এটা হলো ইকনোমিকসের বেসিক থিউরি। সেনাবাহিনী দিয়ে মিগ ফিট করে কিছু করতে পারবে না।’

কৃষি মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে এ সংক্রান্ত আলোচনা হয়েছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘না, আমাদের সঙ্গে কোনো আলোচনা করেনি।

‘এখন কিসে কমাবে? আমরা বিদেশ থেকে চাল আনছি, ওএমএসে দিচ্ছি। এগুলোতে (চালের) দাম ইনশাআল্লাহ কমবে।’

ভিয়েতনামসহ বেশ কয়েকটি দেশ থেকে চাল আমদানি করা হচ্ছে বলেও জানান কৃষিমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘চাল আমদানি ছাড়াও আগামী সেপ্টেম্বর থেকে খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির আওতায় ৫০ লাখ পরিবারকে ১৫ টাকা কেজি দরে চাল দেয়া হবে। এছাড়া এক কোটি পরিবারকে টিসিবির মাধ্যমে ৩০ টাকা কেজি দরে চাল দেয়া হবে।

‘একইসঙ্গে ওএমএসের মাধ্যমে সারাদেশে চাল বিক্রি করা হবে। আশা করি এসব পদক্ষেপের কারণে চালের দাম কমে আসবে।’

আমন মৌসুমে সেচের জন্য কৃষকরা নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ পাচ্ছে কিনা জানতে চাইলে কৃষিমন্ত্রী বলেন, ‘অনেক জায়গায় পাচ্ছে। কিছু কিছু জায়গায়....। আমি মন্ত্রীর (বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী) সঙ্গে কথা বলেছি। আমাদের ময়মনসিংহে একটু সমস্যা আছে।


আরো পড়ুন:



 


ইবি শিক্ষার্থীর রহস্য জনক মৃত্যু হত্যা নাকি আত্মহত্যা। 


ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) ফোকলোর স্টাডিজ বিভাগের স্নাতক ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের ছাত্রী নিশাত তাসনিম উর্মির মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (৮ সেপ্টেম্বর) দিবাগত রাতে মেহেরপুরের গাংনী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। নিহতের বাবার অভিযোগ, উর্মীকে হত্যা করে হাসপাতালে এনে নাটক সাজিয়েছে শ্বশুর বাড়ির লোকজন।

নিহত উর্মীর পিতা গোলাম কিবরিয়া জানান , গভীর রাতে বেয়াই হাসেম শাহ্ মোবাইল ফোনে জানান, মেয়ে উর্মীর অসুস্থ হওয়ায় তাকে গাংনী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হয়েছে। 

অসুস্থতার কারণ জানতে চাইলে উর্মীর ঘরের জানালার সাথে ফাঁস দিয়েছে বলে জানানো হয়। সংবাদ পেয়ে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এসে জানতে পারেন উর্মী অনেক আগেই মারা গেছে। উর্মীর শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে তাকে হত্যা করে আত্মহত্যা বলে ধামাচাপা দেয়া হচ্ছে। পরে পুলিশকে খবর দেয়া হলে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে থানা হেফাজতে নেয়।

নিহত ছাত্রীর পরিবার ও সহপাঠী সূত্রে, স্কুলে পড়াকালীন সময় থেকে গাংনীর পদ্মা এন্টারপ্রাইজের স্বত্ত্বাধিকারী হাসেম শাহ ছেলে আসফাকুজ্জামান প্রিন্সের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক ছিলো উর্মির৷ পরে কলেজে উঠে তাদের বিয়ে হয়। তাদের ঘরে ১৩ মাস বয়সী একটা ছেলে সন্তান আছে।

গাংনী থানার এসআই শাহীন সাংবাদিকদের বলেন, সংবাদ পেয়ে লাশ পুলিশ হেফাজতে নেয়ার পর একটি অপমৃত্যু মামলা রুজু করা হয়েছে। লাশ মেহেরপুর মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন পাওয়া গেলে পরবর্তিতে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।


আরো পড়ুন:


 


সোনার চেইন ও দুলের লোভে শিশুকে গলাটিপে হত্যা 


সোনার চেইন ও কানের দুলের লোভে পড়ে ২য় শ্রেণি পড়ুয়া সায়মা আক্তার নামে এক স্কুলছাত্রীকে গলাটিপে হত্যা করেছে প্রতিবেশি এক নারী। 

হত্যার পর শিশুর মরদেহ বস্তাবন্দী করে নিজের আলমিরার ভেতরে রেখে দেয় সেই নারী। এদিকে মেয়েকে না পেয়ে হন্যে হয়ে খোঁজ করেন নিহত শিশুর অভিভাবক ও স্বজনরা।

নিখোঁজের ৭ ঘন্টা পর প্রতিবেশি হানিফার বাড়ির আলমিরার ভেতর থেকে নিহত শিশুর মরদেহটি উদ্ধার করে পুলিশ। 

নরসিংদীর শিবপুর উপজেলার যোশর ইউনিয়নে মঙ্গলবার এ মর্মান্তিক ঘটনা ঘটেছে।এ ঘটনায় অভিযুক্ত নারী সেলিনা ও তার রিকশাচালক স্বামী হানিফাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। 


নিহত সায়মা আক্তার শিবপুর উপজেলার যোশর গ্রামের সারোয়ার হোসেনের মেয়ে। সে স্থানীয় একটি প্রাইমারি স্কুলে ২য় শ্রেণিতে পড়ত।

নিহতের পরিবার ও পুলিশ জানিয়েছেন, স্কুল থেকে ফিরে দুপুরে খাওয়া-দাওয়ার পর সায়মা খেলতে বের হয়। সন্ধ্যা গড়িয়ে রাত হয়ে গেলেও তাকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না। চারিপাশে অনেক খোঁজের পর পাশ্ববর্তি হানিফা’র বাড়িতে যায় স্বজনরা। সেখানে হানিফার শিশুকন্যা রাইসার কাছে সায়মাকে দেখেছে কিনা জানতে চায়। তখন রাইসা জানায়, সায়মাকে বস্তায় ভরে আলমিরার ভেতরে রেখে দিয়েছেন তার মা সেলিনা। 

এ খবরে নিহতের স্বজনরা আশপাশের লোকজন নিয়ে অভিযুক্ত সেলিনার ঘর থেকে সায়মার লাশ উদ্ধার করে। পরে তাদের গণধোলাই দেয়। 

খবর পেয়ে শিবপুর থানা পুলিশ ও গোয়েন্দা পুলিশ ঘটনা স্থলে উপস্থিত হয়ে নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে। ওই সময় অভিযুক্ত সেলিনাকে গ্রেফতার করা হয়।

নিহত সায়মার বাবা সারোয়ার হোসেন জানিয়েছেন, স্কুল থেকে ফিরে আমার মেয়ে খেলতে বের হয়। তখন তার গলায় একটি চেইন ও কানের দুল ছিল। প্রতিবেশি সেলিনা আমার মেয়েল কানের দুল ছিনিয়ে নেয়। 

ওই সময় আমার মেয়ে আমাদেরকে বলে দিবে এই কথা বলার পরে সেলিনা আমার মেয়েকে গলাটিপে হত্যা করে। এরপর লাশ বস্তাবন্দী করে আলমিরার ভেতরে রেখে দেয়। পরে তার মেয়েই আমাদেরকে বিষয়টি জানিয়ে দেয়।

শিবপুর থানার ওসি সালাউদ্দিন মিয়া জানিয়েছেন,কি কারণে হত্যা করা হয়েছে তা এখনো পরিষ্কার নয়। তবে হত্যার পর তারা পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা চালায়। পরে পুলিশ গিয়ে হানিফা ও সেলিনার ঘর থেকে বস্তাবন্ধি লাশ উদ্ধার করে। অভিযুক্ত স্বামী ও স্ত্রী দুজনকেই গ্রেফতার করা হয়েছে।


আরো পড়ুন:



 


নওগাঁয় বাস ও অটোরিকশা শ্রমিকদের সংঘর্ষের জেরে আন্ত:জেলা রুটে বাস চলাচল বন্ধ


বাস ও অটোরিকশা শ্রমিকদের সংঘর্ষের জেরে নওগাঁ থেকে অভ্যন্তরীণ ও আন্ত:জেলা রুটে পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই বন্ধ করা হয়েছে বাস চলাচল।

বুধবার (১৪ সেপ্টেম্বর) সকাল ৬টার থেকে বাস চলাচল বন্ধের ডাক দেয় জেলা মোটর শ্রমিক ইউনিয়ন এবং জেলা সড়ক পরিবহন মালিক গ্রুপ। এতে ভোগান্তিতে পড়েছেন যাত্রীরা। 

নওগাঁ জেলা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক এস এম মতিউজ্জামান  বলেন, 'গতকাল মঙ্গলবার বিকেল ৫টার দিকে নওগাঁ বাস টার্মিনাল এলাকায় কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে অটোরিকশা ও ইজিবাইকের শ্রমিকেরা কয়েকজন মোটর শ্রমিক মারধর করে। 

এ ঘটনার প্রতিবাদে জড়িতদের গ্রেপ্তারের দাবিতে বাস মালিক ও মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের সিদ্ধান্তে আজ সকাল ৬টা থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য জেলার অভ্যন্তরীণ ও আন্ত:জেলা রুটে বাস চলাচল বন্ধ করা হয়েছে।'

নওগাঁ জেলা সড়ক পরিবহন মালিক গ্রুপের সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা কালিমী বাবুল বলেন, 'বিষয়টি নিয়ে পুলিশ প্রশাসনের লোকজন উভয় পক্ষের সঙ্গে বসেছেন।  আলোচনার মাধ্যমে সমস্যার সমাধান হলে আজকেই বাস চলাচল সচল হতে পারে।  তবে প্রধান দাবি হচ্ছে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নেওয়া পর্যন্ত বাস চলাচল বন্ধ থাকবে।'

নওগাঁ জেলা ইলেকট্রিক ব্যাটারি চালিত অটো চার্জার শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মো. দুলাল মন্ডল বলেন, 'গতকাল বিকেলে বাসস্ট্যান্ড এলাকায় রাস্তার পাশে কয়েকটি অটোরিকশা দাঁড়িয়ে ছিল। এ সময় বাস পরিবহন সংগঠনের শ্রমিকেরা সেখান থেকে অটোরিকশা সরিয়ে নিতে বলে। 


এ নিয়ে উভয় পক্ষের মধ্যে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। সেখানে আমাদের শ্রমিকেরাও আহত হয়েছেন। এটা খুবই সামান্য ঘটনা। এটা নিয়ে বাস চলাচল বন্ধ করে সাধারণ মানুষকে ভোগান্তিতে ফেলা ঠিক হয়নি। প্রশাসনের কর্তারা উভয় পক্ষকে নিয়ে বসেছেন। আশা করছি, আজকের মধ্যেই সমস্যার সমাধান হবে।'


এদিকে হঠাৎ করে বাস চলাচল বন্ধ হয়ে যাওয়ায় বালু ডাঙ্গা আন্তজেলা বাস টার্মিনালে যাত্রীদের দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা গেছে। দুর্ভোগে পড়েছেন যাত্রীরা।

রাজশাহী যাওয়ার জন্য অপেক্ষা করা হাফিজুর রহমান বলেন, ‘আমার এক আত্মীয় রাজশাহী মেডিক্যালে ভর্তি, তাকে দেখতে যাওয়ার কথা আমাদের। এখানে এসে দেখি কোনো বাস রাজশাহী যাবে না। কীভাবে যাব বুঝতে পারছি না।’

আরেক যাত্রী লিপিকা সরকার বলেন, ‘ঢাকা থেকে ট্রেনে এসেছি, সাপাহারে যাব। নওগাঁ বাসস্ট্যান্ডে এসে দেখি বাস বন্ধ। এখন সিএনজিতে যেতে হবে। কিন্তু সিএনজিতে যেতে বাড়তি ভাড়া দিতে হবে।'


আরো পড়ুন:


  1. নিয়ন্ত্রণহীন ভোজ্য তেলের বাজার
  2. Afran Nisho: ভারতীয় ওয়েব সিরিজে আফরান নিশো
  3. জয়নাল হত্যা মামলার সব আসামি খালাস; পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থার নির্দেশ
  4. ফেনীর দাগনভূঁঞায় মোটরসাইকেল চোরাই চক্রের ৩ সদস্য গ্রেফতার 
  5. ফেনীর ফুলগাজীতে দুই মহিলা ছিনতাইকারী গ্রেফতার
  6. বালিয়াডাঙ্গীতে এক পরিবারের চার সন্তানই প্রতিবন্ধী
  7. পুতিনের বেপরোয়া পদক্ষেপ ইউরোপকে সরাসরি হুমকি দিচ্ছে 
  8. Russia Ukrain: বাংলাদেশি জাহাজে হামলার জন্য ইউক্রেনকে দুষছে রাশিয়া 
  9. সাড়ে ১২ কোটি মানুষ টিকার আওতায়
  10. ইউক্রেনে নাজুক অবস্থায় পড়ে গেছি: প্রতিমন্ত্রী


 


বুধবার বিকাল থেকে আসতে পারে বাংলাদেশে টানা বৃষ্টিপাতের প্রকোপ


গত কয়েকদিন ধরে ঢাকাসহ সারাদেশে ভারী বৃষ্টিপাত হচ্ছে। বৃষ্টিপাত ও জলাবদ্ধতায় অনেক স্থানে ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন মানুষ।

সুস্পষ্ট লঘুচাপের প্রভাবে বাংলাদেশের ওপরে বাতাসের চাপ বেশি ছিল। এই কারণে বৃষ্টিপাত বেশি হয়েছে। তবে বুধবার বিকেলের পর থেকে সেটা আসবে বলে তাদের ধারণা।

আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, বুধবার বিকাল পর্যন্ত ঢাকাসহ সারাদেশে দমকা বা ঝোড়ো হাওয়াসহ ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টিপাত হতে পারে। এ সময় বৃষ্টিপাতের মাত্রা হতে পারে ৪৪-৮৮ মিলিমিটার থেকে শুরু করে আরও বেশি।

এই সময় আকাশ মেঘলা থেকে মেঘাচ্ছন্ন থাকতে পারে। দিনের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকবে।

আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, মঙ্গলবার ভোর ছয়টা থেকে বুধবার ভোর ছয়টা পর্যন্ত ঢাকায় ৫৩ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। সাধারণত ৪৪ মিলিমিটারের বেশি বৃষ্টিপাত হলে সেটাকে ভারী বৃষ্টি বলা হয়।

বঙ্গোপসাগরে যে সুস্পষ্ট লঘুচাপটি তৈরি হয়েছিল, সেটি সরে এখন ভারতের দক্ষিণ মধ্য প্রদেশ এলাকায় রয়েছে। এটি আরও পশ্চিম দিকে সরে গিয়ে ক্রমান্বয়ে দুর্বল হয়ে যেতে পারে।


ফলে আশেপাশের এলাকায় এই লঘুচাপের প্রভাবে ভারী বৃষ্টিপাত হচ্ছে। বাংলাদেশ থেকে দূরে থাকলেও সেটার প্রভাবেই এখানেও বৃষ্টিপাত হচ্ছে।

খেয়ালি আবহাওয়া

গত মাসের শেষে বাংলাদেশের আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছিল, চলতি বছরের বর্ষাকালে অর্থাৎ জুলাই ও অগাস্টে গত চার দশকের মধ্যে সবচেয়ে কম বৃষ্টিপাত হয়েছে। একই সঙ্গে এই দুমাসের মধ্যে অন্তত পনের দিন দেশের কোন না কোন জায়গায় দাবদাহের মতো পরিস্থিতি দেখা গেছে, যা অনেকটাই নজিরবিহীন।

এ অবস্থার কারণে সর্বোচ্চ তাপমাত্রার পাশাপাশি সর্বনিম্ন তাপমাত্রাও বেড়ে গিয়েছিল। তাই দিনের পাশাপাশি রাতেও যথেষ্ট গরম অনুভূত হয়েছে।

কিন্তু হঠাৎ করে আবহাওয়ার এমন আচরণের জন্য মৌসুমি বায়ুর খেয়ালি আচরণকেই দায়ী করছেন বিশেষজ্ঞরা।

তবে শরৎ ঋতুতে এসে, সেপ্টেম্বর মাসের প্রথম সপ্তাহ থেকেই বৃষ্টির ঘনঘটা দেখা যেতে শুরু করে। বঙ্গোপসাগরে তৈরি হওয়ার একটি নিম্নচাপের কারণে বাংলাদেশেও বৃষ্টিপাত শুরু হয়। সেই নিম্নচাপটি এখন সুস্পষ্ট লঘুচাপে পরিণত হয়েছে।

আবহাওয়া ও জলবায়ু বিশেষজ্ঞরা বলছেন, অতিরিক্ত গরমে মেঘ পুঞ্জিভূত হতে পারছে না। গরম বাতাসের ধাক্কায় মেঘে যে পানি থাকে তা বৃষ্টি হয়ে নামার আগেই বাষ্প হয়ে যাচ্ছে।

এদিকে, তীব্র গরমের কারণে বাতাসের স্বাভাবিক গতি প্রবাহে পরিবর্তন এসেছে। এর প্রভাবে ফসলের আবাদ কমে যাচ্ছে যা ভবিষ্যতে খাদ্য নিরাপত্তায় বড় প্রভাব ফেলতে পারে সেইসাথে নতুন ধরণের রোগবালাই দেখা দিতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা।


আরো পড়ুন:


  1. নিয়ন্ত্রণহীন ভোজ্য তেলের বাজার
  2. Afran Nisho: ভারতীয় ওয়েব সিরিজে আফরান নিশো
  3. জয়নাল হত্যা মামলার সব আসামি খালাস; পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থার নির্দেশ
  4. ফেনীর দাগনভূঁঞায় মোটরসাইকেল চোরাই চক্রের ৩ সদস্য গ্রেফতার 
  5. ফেনীর ফুলগাজীতে দুই মহিলা ছিনতাইকারী গ্রেফতার
  6. বালিয়াডাঙ্গীতে এক পরিবারের চার সন্তানই প্রতিবন্ধী
  7. পুতিনের বেপরোয়া পদক্ষেপ ইউরোপকে সরাসরি হুমকি দিচ্ছে 
  8. Russia Ukrain: বাংলাদেশি জাহাজে হামলার জন্য ইউক্রেনকে দুষছে রাশিয়া 
  9. সাড়ে ১২ কোটি মানুষ টিকার আওতায়
  10. ইউক্রেনে নাজুক অবস্থায় পড়ে গেছি: প্রতিমন্ত্রী


Holy Foods ads

Holy Foods ads

যোগাযোগ ফর্ম

নাম

ইমেল *

বার্তা *

Blogger দ্বারা পরিচালিত.
Javascript DisablePlease Enable Javascript To See All Widget